Home /News /south-bengal /
Job Scam: নবান্নে সরকারি চাকরির টোপ, ৫০ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ! সোনারপুরে জালে বাবা-ছেলে

Job Scam: নবান্নে সরকারি চাকরির টোপ, ৫০ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ! সোনারপুরে জালে বাবা-ছেলে

অভিযুক্ত উত্তম মুখোপাধ্যায়৷

অভিযুক্ত উত্তম মুখোপাধ্যায়৷

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত দু' জনের বাড়ি থেকে সরকারি চাকরির প্রচুর নিয়োগ পত্র উদ্ধার হয়েছে৷ সেগুলি আসল না নকল, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷

  • Share this:

    #অর্পণ মণ্ডল, সোনারপুর: নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে রাজ্য জুড়ে তোলপাড়৷ গ্রেফতার হয়েছেন প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ এরই মধ্যেই সরকারি চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা তোলার অভিযোগে সোনারপুর থেকে বাবা এবং ছেলেকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ অভিযোগ বিভিন্ন সরকারি দফতরে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রায় ১৫৬ জনের থেকে কমবেশি ৫০ লক্ষ টাকা তোলেন দুই অভিযুক্ত৷

    অভিযুক্ত দু' জনের নাম উত্তম মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর ছেলে অর্ণব মুখোপাধ্যায়৷ উত্তম মুখোপাধ্যায় পেশায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসক৷ ২০১৫ সালে পুরসভা নির্বাচনে রাজপুর সোনারপুর পুরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ড থেকে উত্তম মুখোপাধ্যায় বিজেপি-র প্রার্থী হন৷ গত বিধানসভা নির্বাচনেও বিজেপি-র বুথ এজেন্ট হন উত্তম বাবুর ছেলে অর্ণব৷ বর্তমানে অবশ্য তিনি তৃণমূলে করেন বলে দাবি করেছেন উত্তম মুখোপাধ্যায়৷

    পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত দু' জনের বাড়ি থেকে সরকারি চাকরির প্রচুর নিয়োগ পত্র উদ্ধার হয়েছে৷ সেগুলি আসল না নকল, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ মঙ্গলবার থেকে ম্যারাথন জেরার পর আজ অভিযুক্ত বাবা-ছেলেকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷

    অধিকাংশ চাকরিপ্রার্থীর দাবি, রাজ্যের দুই মন্ত্রীর নাম করে সরকারি চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা আদায় করা হয়েছিল৷ অধিকাংশকেই নবান্নে প্রশাসনিক পদে চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়৷

    আরও পড়ুন: বোলপুর পৌঁছেই তৎপর CBI, অনুব্রতর CA-কে জিজ্ঞাসাবাদ, তলব ২ ব্যাঙ্ক আধিকারিককে

    দেবাশিস মুখোপাধ্যায় নামে এক প্রতারিতের অভিযোগ, উত্তমবাবুর ছেলে অর্ণবের সঙ্গে পরিচয়ের সূত্রেই গত মার্চ মাসে সরকারি চাকরি পাওয়ার আশায় ১ লক্ষ ৩ হাজার টাকা দেন তিনি৷ ওই চাকরিপ্রার্থীর দাবি, 'আমাকে নবান্নে ডব্লিউবিএসইডিসিএল-এ চাকরি করে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছিল৷ চাকরি না হওয়ায় প্রতিদিনই টাকা ফেরত দেওয়ার আশ্বাস দিচ্ছে৷ আমার কাছে লিখিত সবকিছু আছে৷'

    উত্তমবাবুর প্রতিবেশী সুমিত দত্তর অভিযোগ, নবান্নে স্ত্রীর চাকরির আশায় সাড়ে চার লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন তিনি৷ ওই যুবক বলেন, 'সাড়ে চার লাখ টাকা নিয়েছিলেন, আশি হাজার টাকা ফেরত দিয়েছেন৷ নবান্নে আমার স্ত্রীকে প্রশাসনিক পদে চাকরি দেবে বলেছিলেন৷ মন্ত্রীর ভিআইপি প্যানেলের কথা বলেছিলেন৷ সমস্ত কাগজপত্র পুলিশকে দিয়েছি৷'

    আরও পড়ুন: 'দলে আপনার যেমন অধিকার, আমারও আছে মমতাদি',  চরম বার্তা দিলেন তৃণমূল বিধায়ক

    যদিও প্রতারণার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত উত্তম মুখোপাধ্যায়৷ তবে সরকারি চাকরির নিয়োগপত্র যে তিনি দিতেন, সেকথা স্বীকার করেছেন অভিযুক্ত৷ যদিও কোন ক্ষমতাবলে তিনি এই কাজ করতেন বা কার নির্দেশে করতেন, তা নিয়ে মুখ খুলতে চাননি অভিযুক্ত৷ তাঁর দাবি, চাকরি দেওয়ার বিনিময়ে তিনি সাত হাজার টাকা করে নিতেন, কিন্তু তা অন্য কাউকে দিতে হত৷ উত্তম মুখোপাধ্যায় বলেন, 'যারা কাগজপত্র লেনদেন করবে, তাদের জন্য সাত হাজার টাকা করে নিতাম৷ অভিযোগ স্বীকার করার কোনও কারণ নেই৷ যাঁদের চাকরি দেব বলেছি, তাঁদেরকে দিয়েছি বা দিচ্ছি৷ যাঁরা চাকরি করবে না তাদের টাকা ফেরত দিচ্ছি৷'

    কিন্তু কার নির্দেশে এই কাজ করতেন তিনি? উত্তমবাবুর জবাব, 'দিতে বলেছে দিচ্ছি৷ কার কথায় দিচ্ছি বলব না৷' রাজনৈতিক যোগ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, 'আমি তৃণমূল করি, বিজেপি-র প্রার্থী হয়েছিলাম৷ অনেকদিনই বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল করছি৷'

    যদিও রাজপুর টাউন তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শিবনাথ ঘোষের দাবি, অভিযুক্ত উত্তম মুখোপাধ্যায় বরাবরই বিজেপি করেন৷ তাঁর ছেলে অর্ণবও বিজেপি-র সঙ্গে যুক্ত৷ কোনও দিনই তাঁরা তৃণমূলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না৷ গোটাটাই বিজেপি-র চক্রান্ত বলে অভিযোগ স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের৷
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: Fraud, Jobs, Sonarpur

    পরবর্তী খবর