Home /News /south-bengal /

MA Pass Thief Arrested in Ghatal: ইংরেজিতে এম এ পাশ! ঘাটালে চোরকে ধরে অবাক পুলিশই

MA Pass Thief Arrested in Ghatal: ইংরেজিতে এম এ পাশ! ঘাটালে চোরকে ধরে অবাক পুলিশই

ধৃত সৌমাল্য চক্রবর্তী৷

ধৃত সৌমাল্য চক্রবর্তী৷

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত চোরের নাম সৌমাল্য চৌধুরী৷ সে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে এম এ পাশ করেছে (MA Pass Thief Arrested in Ghatal)৷

  • Share this:

    #ঘাটাল: বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীর বাড়িতে চুরি হয়েছিল৷ চুরির তদন্তে নেমে চোরকে গ্রেফতারও করে পুলিশ (Crime news in Bengali)৷ এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল৷ পুলিশ অফিসাররাও ভেবেছিলেন, আর পাঁচটি চুরির ঘটনার মতোই চোরকে কোর্টে চালান করবেন৷ কিন্তু চোরকে জেরা করতে গিয়েই রীতিমতো চক্ষুচড়কগাছ পুলিশ অফিসারদের (MA Pass Thief Arrested in Ghatal)।

    কারণ কথায় কথায় পুলিশকর্মীরা জানতে পারলেন, চুরির অভিযোগে ধৃত যুবক ইংরেজিতে এমএ পাশ!

    আরও পড়ুন: বর্ধমানে কারখানা গড়ে তৈরি হচ্ছিল কোটি কোটি টাকার হেরোইন! গ্রেফতার ৬

    পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত চোরের নাম সৌমাল্য চৌধুরী ৷ সে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে এম এ পাশ, সেই সঙ্গে ওই যুবক নাকি আবার খড়গপুরে দক্ষিণ পূর্ব রেলে অস্থায়ী কর্মী হিসেবে চাকরিও করে। তাঁর বাবা পূর্ত দফতরের একজন অবসরপ্রাপ্ত কর্মী৷

    জেরায় সৌমাল্য জানিয়েছে, আগে তারা থাকত আসানসোলে। সেখান থেকেই তার বাবা বিভিন্ন জায়গায় যোগাযোগ করে রেলের অস্থায়ী কর্মী হিসেবে তার কাজের জোগাড় করে দেন, কিন্তু সেই কাজ নাকি তার ভাল লাগছিল না। আসানসোলে থাকতে থাকতে স্থানীয় কয়েকজন দুষ্কৃতীর সঙ্গে মিশে চুরিতে হাত পাকায় সৌমাল্য৷ চুরি বিদ্যায় নিজের দক্ষতার কথা বোঝাতে গিয়ে সৌমাল্য নিজেই পুলিশকর্মীদের জানিয়েছে, এখন পর্যন্ত সে ১৭০টি চুরি করেছে।

    আরও পড়ুন: নাকা চেকিংয়ে থামল পরপর দুটি গাড়ি, ভেতর থেকে যা উদ্ধার হল, পুলিশের চক্ষু চড়কগাছ

    এমন কি, কয়েক মাস আগে হাওড়া আন্দুলের একটি ফ্ল্যাট থেকে ১০ লক্ষ টাকা সোনার গয়না চুরি করায় সৌমাল্যকে পাঁশকুড়া থেকে গ্রেফতার করে সাঁকরাইল থানার পুলিশ।

    পুলিশ সূত্রে খবর, মানসিক সমস্যা থেকেই সম্ভবত চুরির দিকে ঝুঁকে পড়েছে সৌমাল্য।

    এ দিন ঘাটাল আদালতে তোলা হলে সৌমাল্যকে পাঁচ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক। ঘাটাল থানার পুলিশ জেরা করে জানতে চাইছে, এই ঘটনায় আরও কে কে জড়িত আছে।

    উল্লেখ্য, দিনেদুপুরে বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীর ভাড়া বাড়ির একাধিক তালা ভেঙে লক্ষাধিক টাকার সোনার গয়না চুরি হয়েছিল। চুরির অভিযোগ দায়ের করা হয় ঘাটাল থানায়৷ সিসিটিভি ক্যামেরার ছবি দেখে চুরির তদন্ত শুরু করে ঘাটাল থানার পুলিশ।

    ঘাটাল পৌরসভার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে কোন্নগরে এলাকায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকেন ঘাটাল বিদ্যুৎ দফতরের কর্মী মহাশ্বেতা দে। ঘাটাল থানায় লিখিত অভিযোগ করেন মহাশ্বেতা দেবী। মহিলার অভিযোগ পেয়ে ঘাটাল মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অগ্নিশ্বর চৌধুরী ও ঘাটাল থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার দেবাংশু ভৌমিক পৌঁছে যান মহিলার বাড়িতে। ওই বাড়ির সামনে থাকা সসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে পুলিশ তদন্ত শুরু করে। রবিবার পূর্ব মেদিনীপুর মেচগ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয় সৌমাল্যকে।

    Sukanta Chakraborty

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    পরবর্তী খবর