কনকনে ঠান্ডায় পিঠে পুলি উৎসবে মাতল কালনা

কনকনে ঠান্ডায় পিঠে পুলি উৎসবে মাতল কালনা

উত্সবে স্থান পেয়েছে গ্রাম বাংলার নানান পিঠেপুলি।

  • Share this:

Saradindu Ghosh

#বর্ধমান: জাঁকিয়ে পড়া শীতকে সঙ্গী করে পিঠে পুলি উৎসবে মাতল মন্দির শহর কালনা। উত্সবের উদ্বোধন করলেন প্রাণী সম্পদ বিকাশ মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। উত্সবে স্থান পেয়েছে গ্রাম বাংলার নানান পিঠেপুলি। পিঠে তৈরি থেকে শুরু করে তাতে রসনা পরিতৃপ্ত করা- সব ব্যবস্থাই থাকছে উত্সবে। সেই সঙ্গে রয়েছে মন মাতানো নানান সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

জাঁকিয়ে শীত পড়া মানেই বাড়িতে বাড়িতে পিঠে তৈরির ব্যস্ততা। হেমন্তের ধান ওঠার পর নতুন ধান ঢেঁকিতে পিষে তৈরি হয় চালের গুঁড়ি। তার সঙ্গে নতুন ওঠা খেঁজুর গুড় দিয়ে তৈরি হয় পিঠে। নারকেল কুড়ে বা খোওয়া ক্ষীরের পুর দিয়ে তৈরি হয় বাহারি সব পিঠে। গ্রাম বাংলার ঘরে ঘরে নানান স্বাদের নানান আকারের পিঠে পুলি তৈরির ব্যস্ততা এখন ঘরে ঘরে। নতুন প্রজন্মের অনেকেই এখন সেই পিঠে তৈরি ভুলতে বসেছেন। উত্সবে তাঁরা শিখে নিচ্ছেন রেসিপি।

জাঁকিয়ে পরা শীতের সঙ্গে গরম পিঠের সঙ্গতের মজাই আলাদা। কোনওটা খেতে হয় গাঢ় নলেন গুড় দিয়ে, কোনওটা আবার নলেন গুড় ও ঠান্ডা পায়েসের সঙ্গে। সিদ্ধ পিঠে, দুধ পুলি, পাটি সাপটা, সরু চাকলি, আসকে, ভাপা পিঠে, চিতুই পিঠে, কুলি পিঠে, পুলি পিঠে, পাকান পিঠা,চুসি পিঠা, নকশি পিঠা, পুয়া পিঠা, ছাঁচের পিঠা সহ কত কি। নাম যেমন ভিন্ন তেমন ভিন্ন স্বাদ। এমন অনেক মন মাতানো পিঠেই জায়গা করে নিয়েছে এই উত্সবে।

1563_5e04864fdea58_KALNA UTSAB 02

গ্রাম বাংলার এই সনাতন ঐতিহ্যকেই পুঁজি করে জীবিকা নির্বাহ করছেন বর্ধমানের পূর্বস্হলীর বেশ কয়েকটি পরিবার। শীতের এই দিনগুলিতে বর্ধমান, কালনা সহ শহর এলাকায় পসরা সাজিয়ে থাকেন তাঁরা। উত্সবে স্টল দেওয়া তাঁদের মধ্যে বিজয় পাল বললেন, খাঁটি খেঁজুর গুড়ের সঙ্গে হাতে গরম পিঠে কামড় বসাতে ভিড় করছেন পুরুষ মহিলা সকলেই। তাই বাড়িতে পিঠে তৈরি না হলে আফশোসের কিছুই নেই, উত্সব মাঠে শুধু পৌঁছতে পারলেই হল।

First published: 04:30:16 PM Dec 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर