Home /News /south-bengal /

#EgiyeBangla: ১৯৬২ সালের পর ফের উদ্যোগ, পুরুলিয়ায় বাড়ি বাড়ি জল পৌঁছে দিচ্ছে পুরসভা

#EgiyeBangla: ১৯৬২ সালের পর ফের উদ্যোগ, পুরুলিয়ায় বাড়ি বাড়ি জল পৌঁছে দিচ্ছে পুরসভা

জল পৌঁছবে ঘরে ঘরে ৷ নিজস্ব চিত্র ৷

জল পৌঁছবে ঘরে ঘরে ৷ নিজস্ব চিত্র ৷

পুরুলিয়ার জলকষ্ট নিয়ে বারবার অভিযোগ পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক বৈঠকে সমস্যা সমাধানের নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি।

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: ১৯৬২ সালে শেষবার পুরুলিয়া শহরে বাড়ি বাড়ি জলের সংযোগ দেওয়া হয়েছিল। রাজ্য সরকারের উদ্যোগে আবার শুরু হতে চলেছে সেই প্রক্রিয়া। এবার বাড়ি বাড়ি জলের সংযোগ দেবে পুরসভা। পুরুলিয়ার জলকষ্ট নিয়ে বারবার অভিযোগ পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক বৈঠকে সমস্যা সমাধানের নির্দেশ দিয়েছিলেন তিনি। তারপরেই পুরুলিয়া শহরবাসীদের জন্য উদ্যোগী পুরসভা।

    পুরুলিয়া পুরসভার মধ্যে মোট তেইশটি ওয়ার্ড। বেশিরভাগ ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের বাড়িতেই জলের সংযোগ নেই। রাস্তার জলের কল, কুয়োর জলই ভরসা তাঁদের। কখনও আবার জল কিনে খান বাসিন্দারা। জলসংকট পুরুলিয়া শহরের নিত্যসঙ্গী। মুখ্যমন্ত্রীকে একাধিকবার অভিযোগ জানিয়েছেন মানুষ। ৬ মার্চ প্রশাসনিক বৈঠকে এসে মুখ্যমন্ত্রী সমস্যা সমাধােনর নির্দেশ দেন।

    আরও পড়ুন: #EgiyeBangla: শিক্ষিত বেকার তরুণ-তরুণীদের কর্মসংস্থান করতে রাজ্যের উদ্যোগে তৈরি হয়েছে কর্মতীর্থ হাট

    ১৯৬২ সালের পর থেকে আর বাড়ি বাড়ি জলের সংযোগ দেওয়া হয়নি। সেকারণেই দুর্দশা বেড়েছে। পুরসভার উদ্যোগে আবার বাড়ি বাড়ি জলের সংযোগ দেওয়া হবে। শহরের বিভিন্ন অংশে পাইপলাইন পাতার কাজ শেষ হয়েছে। এছাড়াও শহরে মোট চারটি ওভারওয়েট ট্যাঙ্ক আছে। কাঁসাই নদী থেকে পাম্প দিয়ে জল তুলে ওভারওয়েট ট্যাঙ্কগুলিতে ধরে রাখা হবে। এরপর পাইপলাইনের মাধ্যমে বাড়িতে বাড়িতে জল দেওয়া হবে।

    বাড়ি বাড়ি জলের সংযোগ ---------------------- - লটারির মাধ্যমে জলের সংযোগ দেবে পুরসভা - লটারির টিকিটের দাম ৫০০ টাকা - লটারিতে নাম উঠলে জলের সংযোগ পাওয়া যাবে - ৩২ হাজার টাকা জমা করতে হবে

    বাড়ি বাড়ি ছাড়াও জলের সংযোগ দেওয়া হবে পুরুলিয়ার বিভিন্ন সরকারি দফতর, মন্দির-মসজিদেও। পুরসভার পরবর্তী বৈঠকে সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, পুরুলিয়া শহরের চাহিদা মেটাতে প্রতিদিন ৬০থেকে ৭০ লক্ষ লিটার জল প্রয়োজন। কাঁসাই নদীর গর্ভে পর্যাপ্ত জলও রয়েছে। তাই জলের চাহিদা মিটবে সহজেই। তবুও কিছু পরিমাণ জল পাইপলাইনে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকায় ৮০ লক্ষ লিটার জল তোলা হবে। সব মিলিয়ে জলের জোগান দিতে আর হিমশিম খেতে হবে না পুরসভাকে।

    First published:

    Tags: Egiye Bangla, Pipe Line, Purulia, Purulia Water Problem, Water Crisis, Water Problem

    পরবর্তী খবর