Pet Dog Funeral: প্রাণপ্রিয় 'টমির' বিদায়, অভূক্তদের মুখে খাবার তুলে দিলেন তৃণমূল নেতারা!

সাধু উদ্যোগ

Pet Dog Funeral: নয় বছর আগে অনেকগুলি পথ কুকুরের তাড়া খেয়ে চিনপাই তৃণমূল কংগ্রেস কার্যালয়ে এসে আশ্রয় নেয় সারমেয়টি।

  • Share this:

#বীরভূম: সেই ছোট্ট থেকে আশ্রয়ে ছিল সে , বীরভূমে চিনপাই তৃনমূলের দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে ছিল অবাধ যাতায়াত। ৯ বছর পর শেষমেশ মৃত্যু হল তার। সেই মৃত্যুর তিন দিন পর শোক পালন করে ৫০ জনকে খাওয়ানো হল সারমেয়র আত্মার শান্তি কামনা করে। ঘটনা বীরভূমের সদাইপুর থানার চিনপাই গ্রামের।

উল্লেখ্য, নয় বছর আগে অনেকগুলি পথ কুকুরের তাড়া খেয়ে চিনপাই তৃণমূল কংগ্রেস কার্যালয়ে এসে আশ্রয় নেয় সারমেয়টি। ব্যস, তারপর থেকেই সে সবার প্রিয় পাত্র হয়ে উঠেছিল। ভালোবেসে সকলে মিলে নাম রাখে "টমি"। তার থাকা-খাওয়া সবকিছুই ওই পার্টি অফিসেই। দলীয় কার্যালয়ের সব জায়গায় ছিল তার অবাধ যাতায়াত।

সম্প্রতি বয়সের ভারে চোখে কম দেখছিল, শুনতেও পারছিল না টমি। তিনদিন আগে 'টমি' তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনেই পাকা রাস্তার উপর লরি চাপা পড়ে। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় সকলের প্রিয় 'টমি'র। আর এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই শতাধিক কর্মীদের মন ভেঙে যায়। ঠিক হয় তিনদিন পর 'টমি'র স্মৃতির উদ্দেশ্যে একটি ভোজের আয়োজন করা হবে। যেমন ভাবনা তেমনই কাজ। বুধবার রাতে সকল কর্মীদের এবং গ্রামবাসীদের সহযোগিতায় চাঁদা তুলে ভোজ কাজের আয়োজন করা হয়। স্থানীয় ঘোষ পাড়ার কয়েকটি পরিবার, দলীয় কর্মী,  চিনপাই গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সহ বিশিষ্ট অতিথিরাও নিমন্ত্রিত ছিলেন। মেনুতে ছিল আলু ভাজা,আলুপোস্ত, মাংস ও  চাটনী। পাত পেড়ে ভোজ খেলেন পঞ্চাশ জন।

সরকারী নির্দেশানুসারে, করোনার গেড়োয় এখন ভোজ-কাজে পঞ্চাশ জনের বেশি অতিথি নিমন্ত্রণ করা যাবে না। তা না হলে নিমন্ত্রনের তালিকা বেশ দীর্ঘ হত, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এই ভাবে বেঁচে থাকুক মানবিকতা। আর চিনপাই গ্রামের এই ঘটনা সমাজে দৃষ্টান্ত স্থাপন করল। তবে যারা এসেছিলেন তাদের প্রত্যেকেরই মন খারাপ। কারণ টমি ছিল সবার প্রিয়। কখনও দলীয় কার্যালয় তো কখনো গ্রামবাসীদের বাড়িতে থাকত। সেই টমির মৃত্যু অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। টমির ছবির সামনে রাখা হয়েছিল টমির প্রিয় বিস্কুট। দুবরাজপুর পঞ্চায়েত সমিতি কৃষি কর্মাধ্যক্ষ রফিউল খান জানিয়েছেন, ছোট্ট থেকে মানুষ করেছিলাম তাকে , আজ মারা যাওয়ার খবরে মন খারাপ। অন্যদিকে বিরু দাস নামে অপর উদ্যোক্তা জানিয়েছেন, টমির আত্মা যাতে শান্তি পায় তার জন্যই এই উদ্যোগ।

Published by:Suman Biswas
First published: