• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • শুরু হোক লোকাল ট্রেন চলাচল, বাসে বাদুরঝোলা হয়ে আর চলছে না! বলছেন এরা সবাই...

শুরু হোক লোকাল ট্রেন চলাচল, বাসে বাদুরঝোলা হয়ে আর চলছে না! বলছেন এরা সবাই...

ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় মার খাচ্ছে পুজোর মুখে বিভিন্ন বিক্রিবাটা। প্রতিদিন রেলপথে বর্ধমান শহরে লক্ষাধিক বাসিন্দা আসা-যাওয়া করেন।

ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় মার খাচ্ছে পুজোর মুখে বিভিন্ন বিক্রিবাটা। প্রতিদিন রেলপথে বর্ধমান শহরে লক্ষাধিক বাসিন্দা আসা-যাওয়া করেন।

ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় মার খাচ্ছে পুজোর মুখে বিভিন্ন বিক্রিবাটা। প্রতিদিন রেলপথে বর্ধমান শহরে লক্ষাধিক বাসিন্দা আসা-যাওয়া করেন।

  • Share this:

#বর্ধমান: আনলক পর্বে ধাপে ধাপে স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন। দোকানপাট, বাজার হাট, শপিং মল, সরকারি অফিস সবই খোলা। রমরমিয়ে পুজোর বাজারে চলছে। তাই এবার যাতায়াতে স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু করার পক্ষেই বর্ধমানের বাসিন্দাদের অনেকে। তাঁরা বলছেন, রুটি-রুজির প্রয়োজনে, চিকিৎসার দরকারে বাসিন্দাদের এক জায়গা থেকে অন্যত্র যেতেই হচ্ছে। কিন্তু ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় দুর্ভোগ ও খরচ দুইই বাড়ছে। তাছাড়া ট্রেন চলাচলের ওপর বহু মানুষের রুটিরুজি নির্ভরশীল। তাই সকলের কথা চিন্তা করে দ্রুত লোকাল ট্রেন চলাচল চালু করার পক্ষে অনেকে।

প্রতিদিনই ভিড় বাড়ছে বর্ধমানের নবাবহাট বাসস্ট্যান্ডে। কলকাতা থেকে শুরু করে আসানসোল, দুর্গাপুর কিংবা কালনা, কাটোয়ার অফিস যাত্রীরা ভিড় করছেন সেখানে। সেইসব অফিস যাত্রীদের অনেকেই বলছেন, কাজের প্রয়োজনে এতদিন ট্রেনই অন্যতম ভরসা ছিল। ভাড়া এবং সময় দুয়েরই সাশ্রয় হত তাতে। কিন্তু সেই মার্চ মাস থেকে লকডাউন পর্ব পার করে এখন অফিস যাওয়ার জন্য বাসই একমাত্র মাধ্যম হয়ে উঠেছে। অথচ বাসের সংখ্যা বাড়েনি। ফলে স্বল্প সংখ্যক বাসেই গাদাগাদি করে বাদুড়ঝোলা হয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে। তাতে করোনা সংক্রমনের আশঙ্কা আরও বেশি থাকছে। লোকাল ট্রেন চালু থাকলে বাসের এই ভিড় এড়ানো সম্ভব হত।

বর্ধমান,শক্তিগড়, মেমারি সহ রেল লাইনের পাশের শহরগুলির আর্থসামাজিক পরিকাঠামো অনেকাংশেই ট্রেন চলাচলের উপর নির্ভরশীল। বহু বাসিন্দা ভোরের ট্রেনে সবজি এনে তা বিক্রি করেন শহরে৷ ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় কাজ হারিয়েছেন তাঁরা। চড়া দামে সবজি কিনতে হচ্ছে অন্যান্য বাসিন্দাদের। ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় মেমারি থেকে কলকাতায় মিষ্টি তৈরির জন্য ছানা রফতানি একরকম বন্ধ। কেউ কেউ সড়কপথে বর্ধমান বা কলকাতার সেই ছানা সরবরাহ করলেও তার দাম অনেক বেশি পড়ছে। পরিবহণ খরচের কারণে লাভ হচ্ছে না ব্যবসায়ীদের।

ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকায় মার খাচ্ছে পুজোর মুখে বিভিন্ন বিক্রিবাটা। প্রতিদিন রেলপথে বর্ধমান শহরে লক্ষাধিক বাসিন্দা আসা-যাওয়া করেন। তাদের অনেকেই শহরে প্রয়োজনীয় নানা জিনিস কেনাকাটা করেন। সেই ক্রেতাদের দেখা না পেয়ে হতাশ ব্যবসায়ীরা। কবে ট্রেন চলাচল শুরু হবে তারই প্রতীক্ষায় এখন দিন গুনছেন অনেকে৷

Published by:Pooja Basu
First published: