corona virus btn
corona virus btn
Loading

ডাইনি অপবাদ দিয়ে পৌঢ়ার ওপর নির্যাতন

ডাইনি অপবাদ দিয়ে পৌঢ়ার ওপর নির্যাতন

দিনের পর দিন একঘরে করে রেখে সপরিবারে ওই মহিলাকে খুনের হুমকিও দেওয়া হচ্ছিল।

  • Share this:

#বর্ধমান: তথ্য প্রযুক্তির এই অগ্রগতির দিনেও ডাইনি অপবাদ দিয়ে মারধর করা হল এক পৌঢ়াকে! দিনের পর দিন একঘরে করে রেখে সপরিবারে ওই মহিলাকে খুনের হুমকিও দেওয়া হচ্ছিল। এ রাজ্যের পিছিয়ে পড়া প্রত্যন্ত কোনও গ্রামের ঘটনা নয়,পূর্ব বর্ধমান জেলার মন্তেশ্বরে এমনই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার খবর পেয়েই তৎপরতা বাড়িয়েছে পুলিশ প্রশাসন  ইতিমধ্যেই ওই মহিলার উপর নির্যাতনের অভিযোগে চার জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত বাকিদেরও চিহ্নিত করে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। ডাইনি অপবাদ দিয়ে এক বয়স্ক মহিলাকে একঘরে করে রাখার অভিযোগ উঠলো প্রতিবেশীদের বিরুদ্ধে। পূর্ব বর্ধমান জেলার মন্তেশ্বর থানার মাঝের গ্রাম উত্তরপাড়া এলাকার এই ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনার কথা জানাজানি হতেই জেলাজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। খবর পেয়ে বিডিও অফিসের আধিকারিকরা, পঞ্চায়েত প্রধান ও অন্যান্য সদস্যরা এলাকায় যান। তাঁরা গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলেন। স্হানীয় পঞ্চায়েত প্রধান বিপুল দাস বলেন, ডাইনি অপবাদ দিয়ে এক বয়স্ক মহিলার ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছিল বলে খবর পেয়ে আমরা এলাকায় যাই। গ্রামবাসীদের বোঝানো হয়েছে। তারা যাতে এই কুসংস্কার থেকে বেরিয়ে আসতে পারেন তার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। পুলিশ এই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে। আশাকরি ওই মহিলাকে আর এই পরিস্থিতির মধ্যে কাটাতে হবে না। জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগে এক সাধু ওই গ্রামে এসেছিলেন। তিনিই ঘোষণা করেন গ্রামে এক ডাইনি রয়েছে। তার জন্যই গ্রামে ক্ষতি হচ্ছে। কোনও উন্নতি হচ্ছে না। অবিলম্বে গ্রামের ওই ডাইনিকে চিহ্নিত করে মেরে ফেলতে হবে। নচেৎ গ্রামবাসীদের বিপদ আরও বাড়বে।

এরপর গ্রামবাসীরা ডাইনি খোঁজার কাজ শুরু করে। এই পৌঢ়ার ওপর ডাইনি অপবাদ চাপিয়ে দেওয়া হয়। শুরু হয় মানসিক নির্যাতন। মারধরও করা হয় এই বয়স্ক মহিলাকে। তাঁকে গ্রাম ছেড়ে চলে যাওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়। প্রতিবাদ করেন পৌঢ়ার ছেলে বউমা। তাতেই রুষ্ট হয়ে ওই পরিবারকে একঘরে করে দেওয়া হয়। দোকান বাজার, পুকুর ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়। পথে নামাই দায় হয়ে পড়ে ওই পরিবারের।এলাকায় কাজ করা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে খবর পেয়ে তৎপর হয় পুলিশ প্রশাসন।

Published by: Akash Misra
First published: June 17, 2020, 11:36 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर