নাগরিকত্ব বিলের আতঙ্কের জের, দুই স্বাস্থ্যকর্মীকে আটকে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

নাগরিকত্ব বিলের আতঙ্কের জের, দুই স্বাস্থ্যকর্মীকে আটকে বিক্ষোভ গ্রামবাসীদের

গ্রামের মহিলারা জানান, ওই স্বাস্থ্যকর্মী রেশনের দোকান থেকে আধার কার্ডের বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করেছেন।

  • Share this:

Pranab Kumar Banerjee

#মুর্শিদাবাদ: নাগরিকত্ব বিল পাস হওয়ার পর মুর্শিদাবাদ জেলা অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল। একাধিক স্টেশন , ট্রেন ,বাস সহ সরকারি সম্পত্তি আগুন লাগিয়ে দিয়েছিল বিক্ষোভকারীরা। নাগরিকত্ব বিল নিয়ে বেশিরভাগ গ্রামের মানুষই আতঙ্কে ভুগছে। শুক্রবার হরিহরপাড়া ব্লকের মামুদপুর গ্রামে স্বাস্থ্যকর্মী প্রতিমা মন্ডল গ্রামবাসীদের বাড়ি বাড়ি তথ্য তুলছিলেন। সাধারণত প্রসূতি মায়েদের কী কী টিকা করণ হয়েছে, কোন প্রসূতি মা টিকা নেননি, কোন শিশুর টিকা হয়নি এসব তথ্য গ্রামে ঘুরে ঘুরে সংগ্রহ করছিলেন। অভিযোগ সেই সময় গ্রামবাসীরা তাকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

তাদের অভিযোগ এই তথ্য নেয়া হচ্ছে নাগরিকত্ব বিলের জন্য। কারণ স্বাস্থ্য দফতর থেকে কিছুদিন আগেই তথ্য তুলে নেওয়া হয়েছে। তাহলে আবার কেন তথ্য তুলতে এসেছেন ওই মহিলা। গ্রামের মহিলাদের সঙ্গে পুরুষরা যোগ দেয় বিক্ষোভে।

গ্রামের মহিলারা জানান, ওই স্বাস্থ্যকর্মী রেশনের দোকান থেকে আধার কার্ডের বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করেছেন। পরে পুলিশ গিয়ে মহিলাকে উদ্ধার করতে গেলে পুলিশকেও বিক্ষোভের মধ্যে পড়তে হয়। হরিয়ার পাড়া- নওদা রাজ্য সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন গ্রামবাসীরা।

পুলিশ গ্রামবাসীদেরকে বুঝিয়ে স্বাস্থ্যকর্মীকে উদ্ধার করে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ওই মহিলা সমস্ত তথ্য নিচ্ছিল।আগে তো অনেক স্বাস্থ্যকর্মী এসেছে গ্রামে তারা কোনও দিন এই ধরনের তথ্য নেয়নি। ওই মহিলাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, এই তথ্য তোলার জন্য আমাদের নির্দেশ দিয়েছে। সেই কারণে আমরা সার্ভে করছি। গ্রামবাসীদের আশঙ্কা ওই মহিলা নাগরিকত্ব বিল এর জন্যই কাজ করছেন। নওদা থানার ত্রিমোহিনী ভিকু তলাতে সার্ভে করার জন্য এক আশা কর্মী বাড়ি বাড়ি ঘুরছিলেন ৷ সেই সময় গ্রামবাসীরা তাকে আটকেও বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ নাগরিকত্ব বিলের জন্যই তথ্য তুলছেন ওই কর্মী। মানুষজন ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। নওদা থানা থেকে বিশাল পুলিশবাহিনী গিয়ে মহিলাকে উদ্ধার করে। যদিও ওই আশা কর্মী বলেন, এই মাসের ৬ তারিখের মধ্যে আমাদের প্রতিটি বাড়িতে ছোট বাচ্চার সংখ্যা ও প্রসূতি মায়েদের নিয়ে তথ্য তোলার দায়িত্ব দিয়েছে। সেই কাজ করতে এসে গ্রামবাসীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

First published: 10:18:00 PM Jan 03, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर