দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমানে রেল সেতুর বিকল্প পথের দাবিতে জোরদার হচ্ছে আন্দোলন

বর্ধমানে রেল সেতুর বিকল্প পথের দাবিতে জোরদার হচ্ছে আন্দোলন

২৯ সেপ্টেম্বর থেকে পুরনো রেল ওভারব্রিজ ভাঙার কাজ শুরু করার পাশাপাশি জবর দখল উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে রেল। চিন্তায় পড়েছেন বাসিন্দারা।

  • Share this:

#বর্ধমান: বর্ধমানে পুরনো রেল সেতু ভাঙার আগে বিকল্প পথের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন বাসিন্দারা। তৃণমূল কংগ্রেস, এস ইউ সি আইয়ের পর এবার বাসিন্দাদের পাশে এসে দাঁড়ালো বিজেপিও। তারাও বিকল্প পথের দাবি তুলেছে।

বর্ধমান রেল স্টেশন এলাকায় বিকল্প পথের দাবিতে আন্দোলন ক্রমশ জোরদার হচ্ছে। বিকল্প রাস্তা না করে পুরনো রেল ওভার ব্রিজ ভাঙা যাবে না - এই দাবিতে বিক্ষোভ আন্দোলন শুরু করেছেন বাসিন্দারা। রেলের অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ারের অফিসের সামনে মঞ্চ বেঁধে বিক্ষোভও হয়েছে। পুরনো রেল সেতু অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন টোটোর চালক ও এলাকার বাসিন্দারা। এবার তারা পাশে পেয়েছে রাজনৈতিক দলগুলিকেও।

২৯ সেপ্টেম্বর থেকে পুরনো রেল ওভারব্রিজ ভাঙার কাজ শুরু করার পাশাপাশি জবর দখল উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়ে দিয়েছে রেল। চিন্তায় পড়েছেন বাসিন্দারা। প্রশ্ন উঠেছে, সেতু ভেঙে ফেললে বাসিন্দারা যাতায়াত করবেন কিভাবে।

বর্ধমান রেল স্টেশন লাগোয়া পুরনো রেল ওভারব্রিজ পরিত্যক্ত ঘোষনা হওয়ায় বহু কোটি টাকা ব্যয়ে নতুন রেল ওভারব্রিজ তৈরি করা হয়েছে। সেই সেতু থেকে অ্যাপ্রোচ রোড হিসেবে চারটি উড়ালপুল বেরিয়েছে। সেই সেতু এতই দীর্ঘ ও উঁচু যে প্রতিদিন তা পায়ে হেঁটে, সাইকেলে পারাপার সম্ভব নয়। উচ্চতার কারণে টোটো উঠতে পারছে না। বাসিন্দারা তাই পুরনো রেল ওভারব্রিজ দিয়েই যাতায়াত করছিলেন। রেলকে বিকল্প পথের ব্যবস্হা করে সেতু ভাঙার প্রস্তাব দিয়েছিল জেলা প্রশাসনও।

বিকল্প পথ না হওয়া পর্যন্ত সেতু ভাঙা যাবে না বলে দাবি তুলেছেন বাসিন্দারা। তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে শাসক দল তৃণমূল ও এসইউসিআই। এরপর একই দাবি তুলেছে বিজেপিও। বিকল্প রাস্তা তৈরি না করে রেলকে সেতু না ভাঙার আর্জি জানিয়েছে তারাও। এখন রেল কোন পথে হাঁটে সেটাই দেখার। রাজনৈতিক দলগুলিকে পাশে পেয়ে মনোবল বেড়েছে বাসিন্দাদের। তাঁরা বলছেন, বিকল্প রাস্তাতা তৈরি না করে রেল সেতু ভাঙতেে এলে তাদের বাাাধা দেওয়া হবে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: September 26, 2020, 5:12 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर