দেবী জাগ্রত এখানে, দোলপূর্ণিমার সাতদিন আগে ঘাটালের কুশপাতা শীতলা মন্দিরে হয় সন্ধ্যারতি

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Mar 19, 2019 09:41 PM IST
দেবী জাগ্রত এখানে, দোলপূর্ণিমার সাতদিন আগে ঘাটালের কুশপাতা শীতলা মন্দিরে হয় সন্ধ্যারতি
প্রতীকী ছবি ৷
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Mar 19, 2019 09:41 PM IST

#ঘাটাল: একটা সময় মহামারীর প্রকোপ বেড়ে গিয়েছিল ৷ আর মহামারীর প্রকোপ থেকে সন্তানদের বাঁচাতে কয়েকশো বছর আগে শুরু হয়েছিল মন্দিরের সন্ধ্যা আরতি। স্থানীয় মানুষের দাবি ১৭৫১ সালে ঘাটাল কুশপাতা শীতলা মন্দির এই সন্ধ্যরতি শুরু করেন সতীশ পন্ডিত। জানা যায় সেই সময় ঘাটাল কুশপাতা, বেলপুকুর, গোবিন্দপুর-সহ বেশ কয়েকটি গ্রামে হাম, পক্স এর মত  মহামারী রোগে আক্রান্ত হন এই এলাকার মানুষ।

সতীশ পন্ডিত ওই এলাকারই একটি পুকুর থেকে শীতলা মায়ের মূর্তি কুড়িয়ে পান এবং মা স্বপ্নাদেশ দেন আমার মন্দিরে চাঁচড় উৎসব  করে গ্রামের মহিলারা যদি সন্ধ্যারতি দেখায় তবেই এই মহামারীর হাত থেকে তাঁরা রক্ষা পাবে।

সেই থেকেই দোল পূর্ণিমার সাতদিন আগে থেকে বেশ কয়েকটি গ্রামের মহিলারা সন্ধ্যাবেলায় বরণডালায় প্রদীপ, মোমবাতি ধুপ সাজিয়ে নিয়ে আসেন মন্দিরে এবং পাশাপাশি শীতলা ও শিব মন্দিরে সন্ধ্যারতি করেন আজও এই পুরানো প্রথা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি এলাকাবাসী। প্রতি বছর দোল পূর্ণিমার  সাতদিন আগে সন্ধ্যা আরতি করতে মন্দিরে ভিড় জমান কয়েকটি গ্রামের মহিলারা।

First published: 09:41:46 PM Mar 19, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर