বীরভূমের বেশ কিছু জায়গায় পুলিশের হস্তক্ষেপের পরই ‘লকডাউন’ কী জিনিস বুঝল বাসিন্দারা

বীরভূমের বেশ কিছু জায়গায় পুলিশের হস্তক্ষেপের পরই ‘লকডাউন’ কী জিনিস বুঝল বাসিন্দারা

লকডাউন শুরু হতেই বীরভূম জেলার বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয়েছে মাইক নিয়ে প্রচার ৷

  • Share this:

#বীরভূম: লকডাউন চলছে বীরভূমে, প্রথম থেকে না মানার ইচ্ছা থাকলেও পুলিশি হস্তক্ষেপে লকডাউন মানতে অবশেষে বাধ্য হল বীরভূমবাসী। লকডাউন শুরু হতেই বীরভূম জেলার বিভিন্ন জায়গায় শুরু হয়েছে মাইক নিয়ে প্রচার ৷

অনেকেই লকডাউন মেনে নিয়েছেন নিজের জন্য এবং বাকিদের ভালোর জন্য। তবে বেশ কিছু দায়িত্বজ্ঞানহীন মানুষকে দেখা গিয়েছিল রাস্তায় এবং বিভিন্ন জায়গায় ভিড় করতে বীরভূম জেলা প্রশাসনের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং নিজে তাঁর আধিকারিকদের নিয়ে সারারাত সিউড়ির বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায়। বেশ কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয় ৷

অন্যদিকে বীরভূম জেলা প্রশাসনের বেশ কয়েকটি টাস্ক ফোর্স বীরভূমের বিভিন্ন রাস্তায় নেমে পড়ে। টাক্স ফোর্সের কাজ ছিল অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের বিক্রি ও দামের দিকে নজর রাখা। যে সিউড়ির বাস স্ট্যান্ড অন্য সময় ব্যাপক ব্যস্ততম এলাকা হিসেবে পরিচিত ৷ পুলিশি হস্তক্ষেপের পর সেই বাস স্ট্যান্ড এখন ফাঁকা। বীরভুমের বোলপুর,  রামপুরহাট,  খয়রাশোল,  সিউড়ি,  সাঁইথিয়া সব জায়গাতেই পুলিশ দায়িত্বজ্ঞানহীন মানুষদের লাঠিপেটা করে বাড়ি ঢোকায়।

সিউড়ির বেশকিছু চায়ের দোকান ও ক্লাবে অভিযান চালায় পুলিশ। বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গদারা জানিয়েছেন, মানুষ যদি না মানে,  মানুষকে মানানো হবে নিয়ম। সিউড়ি বাস স্ট্যান্ডের সামনে ওই রাস্তায় যাতায়াতকারী সমস্ত গাড়ি দাঁড় করিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলে। পুলিশি হস্তক্ষেপের পরেই লকডাউন কি জিনিস তা বুঝতে পারছে বীরভূমবাসী।

Supratim Das

First published: March 25, 2020, 2:37 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर