সংস্কারে গতি নেই, ফের অবরোধ কালনার এসটিকেকে রোডে

সংস্কারে গতি নেই, ফের অবরোধ কালনার এসটিকেকে রোডে
দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে থাকা এই রাস্তা সংস্কারের দাবিতে অবরোধ করলেন ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা

দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে থাকা এই রাস্তা সংস্কারের দাবিতে অবরোধ করলেন ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা

  • Share this:

#বর্ধমান: ফের অবরোধ হল কালনার বেহাল এস টি কে কে রোডে। দীর্ঘদিন ধরে চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে থাকা এই রাস্তা সংস্কারের দাবিতে অবরোধ করলেন ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা। তাঁরা বলছেন, বহুবার বহুভাবে মন্ত্রী থেকে মহকুমা শাসক সকলের কাছে এই রাস্তা সারানোর আবেদন জানানো হয়েছে। বহু আবেদন নিবেদনের পর সংস্কারের কাজ শুরু হলেও তা চলছে অতি ঢিমে তালে। ফলে প্রতিদিনই এই বেহাল রাস্তায় দুর্ঘটনা ঘটছে। দুদিন আগে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে। তার পরও রাস্তা চলাচলের উপযোগী না হয়ে ওঠায় ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন বাসিন্দারা।

গতকালই কংগ্রেসের নেতৃত্বে এই বেহাল রাস্তায় ধান গাছ পুঁতে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন এলাকার বাসিন্দারা। এদিন ফের এই রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো হয়। এদিন কালনার ধর্মডাঙা মোড়ে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা এই রাস্তা অবরোধ করে। অবরোধের জেরে দুদিকে ব্যাপক যানজট হয়। অবিলম্বে তৎপরতার সঙ্গে রাস্তা সংস্কারের কাজ সম্পূর্ণ না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে বিজেপি।

সপ্তগ্রাম ত্রিবেণী কালনা কাটোয়া রোডকে সংক্ষেপে এস টি কে কে রোড বলা হয়। পূর্ব বর্ধমান হুগলির মধ্য দিয়ে যাওয়া দক্ষিণ বঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের সঙ্গে যোগাযোগের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এটি। অথচ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে এই রাস্তা বেহাল হয়ে পড়ে রয়েছে। রাস্তায় পিচ উঠে বিশাল বিশাল গর্ত তৈরি হয়েছে। খানাখন্দে ভরে উঠেছে রাস্তা।তার ফলেই দুর্ঘটনা নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুদিন আগেই এক মোটর সাইকেল আরোহী রাস্তার গর্তে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পড়ে গেলে একটি লরি তলায় চাপা পড়ে তাঁর মৃত্যু হয়। ওই ঘটনার পর এই রাস্তা ব্যবহারকারী বাসিন্দাদের ক্ষোভ আরও বেড়েছে। তাঁরা বলছেন, কালনার পারুলিয়া থেকে পান্ডুয়ার রেল গেট পর্যন্ত রাস্তার হাল খুবই খারাপ। অথচ তা চলাচলের উপযোগী করে তোলা হচ্ছে না।


এই রাস্তা সংস্কারের কাজ শেষ না হওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছে জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, এস টি কে কে রোড সংস্কারের কাজ প্রতিদিন তদারক করা হচ্ছে। সংস্কারের কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Ananya Chakraborty
First published:

লেটেস্ট খবর