নেশামুক্তি কেন্দ্রের আবাসিকদের নির্মম অত্যাচার!

নেশামুক্তি কেন্দ্রের আবাসিকদের নির্মম অত্যাচার!

আবাসিকদের উপর অমানবিক অত্যাচার চালানোর ভিযোগ উঠল সোনারপুরের এলাচির এলাকার একটি পুনর্বাসন কেন্দ্রে ৷

  • Share this:

#সোনারপুর: নেশামুক্তি কেন্দ্রের আবাসিকদের নির্মম অত্যাচার! ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুরের এলাচি এলাকায়। কয়েকদিন আগেই ওই এলাকার নেশামুক্তি কেন্দ্র জে জীবনজ্যোতি ফাউন্ডেশন থেকে পালিয়ে যান এক আবাসিক। পুলিশে ওই কেন্দ্রের কর্তাদের বিরুদ্ধে আবাসিকদের ওপর অত্যাচারের অভিযোগ করেন তিনি। এর জেরেই মঙ্গলবার ওই পুনর্বাসন কেন্দ্রে হানা দেয় পুলিশ। অভিযানে ছিলেন বারুইপুরের এসডিও, এসডিপিও ও সোনারপুর থানার পুলিশ। ওই পুনর্বাসন কেন্দ্রে আবাসিকদের ওপর যে অত্যাচার হত তার প্রমাণ মিলেছে। অভিযোগ আবাসিকদের হাতকড়া পরিয়ে লাঠিপেটা করা হত। উদ্ধার হয়েছে হাতকড়া ও লাঠি। আবাসিকদের উপযুক্ত খাবার দেওয়া হত না বলেও অভিযোগ উঠেছে। সংস্থাটির সম্পাদক দীপঙ্কর রায়, সোমনাথ মিত্র ও রণজিৎ চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সংস্থাটির প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র রয়েছে কিনা তা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

সম্প্রতি এক আবাসিক সেখান থেকে পালিয়ে গিয়ে অবিযোগ জানায় ৷ কোনওরকম সেখান থেকে পালিয়ে আরেক আবাসিকের বাড়িতে তাদের উপর হওয়া অমানবিক অত্যাচারের ঘটনার কথা জানান ৷ শুনে সোনারপুর থানায় তড়িঘড়ি ছুটে গিয়ে পুনর্বাসন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানো হয় ৷ পালিয়ে আসা আবাসিকের অভিযোগের ভিত্তিতে হানা দেয় জীবনজ্যোতি ফাউন্ডেশনে ৷ তল্লাশি চালিয়ে পুনর্বাসন কেন্দ্রে থেকে হাতকড়া-লাঠি উদ্ধার করেছে পুলিশ ৷ বাকি আবাসিকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তারাও একই কথা জানায় ৷ হাতকড়া পরিয়ে রড দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হত ৷

আবাসিকদের অভিযোগের ভিত্তিতে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ৷ তবে এখনও অধরা  পুনর্বাসন কেন্দ্রের মালিক ৷ তবে হোমের কর্মচারীরা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ৷

ঘটনার কথা ছড়িয়ে পড়তেই জমা হয়ে যায় এলাকাবাসীরা ৷ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে পুনর্বাসন কেন্দ্রে ভাঙচুর ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা ৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ ৷ ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এক পুলিশ আধিকারিক ৷

First published: 11:56:25 AM Jan 31, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर