• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • PATASHPUR TMC MLA UTTAM BARIK STARTS A NEW ORGANISATION NAMED ABHISHEK SOLDIERS IN PURBA MEDINIPUR FOR SOCIAL WORK SB

Abhishek Soldiers: শুভেন্দুর গড়ে কাজ শুরু করল 'অভিষেক সোলজার'! প্রবল গুঞ্জন জেলাজুড়ে

জেলায় শুরু টক্কর

Abhishek Soldiers: অভিষেক সেনা সামাজিক কাজে ঝাঁপিয়ে পড়বে। মহামারীর সময়ে অক্সিজেন, মাস্ক,খাবার পৌঁছে দিয়েছে রেড ভলেন্টিয়াররা। পিছিয়ে ছিল না তৃণমূল যুব কংগ্রেসও।

  • Share this:

#পটাশপুর: শুভেন্দু অধিকারীর গড়ে এবার ''অভিষেক সোলজার"! অধিকারীদের এলাকায় তাঁদের রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীর নামে সেনাবাহিনী গড়ে চমকে দিয়েছেন পটাশপুড়ের তৃণমূল বিধায়ক উত্তম বারিক। তবে এই সেনা বাহিনী যুদ্ধ লড়বে না। এই সেনা বাহিনী সামাজিক কাজে ঝাঁপিয়ে পড়বে। মহামারীর সময়ে অক্সিজেন, মাস্ক,খাবার পৌঁছে দিয়েছে রেড ভলেন্টিয়াররা। পিছিয়ে ছিল না তৃণমূল যুব কংগ্রেসও। দুই রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের যুব উইংয়ের এই কাজ যথেষ্ট প্রশংসা কুড়িয়েছে।

এবার যুব সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়েই সামাজিক সেবার লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন পটাশপুরের তৃণমূল বিধায়ক উত্তম বারিক। সমাজ সেবার লক্ষ্য নিয়েই গড়ে তুললেন নয়া সংগঠন ''অভিষেক সোলজার"। উত্তম বারিক এবার প্রথম বারের জন্যে বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর লক্ষ্য নিজ এলাকার শিক্ষিত যুব সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে সংগঠন গড়া। ইতিমধ্যেই তাঁর এই ''অভিষেক সোলজার" সংগঠনে সদস্য হয়ে গিয়েছেন এলাকার কয়েক হাজার যুব প্রতিনিধি।

উত্তম বারিক জানিয়েছেন, "সংগঠনের ষাট শতাংশ প্রতিনিধি গ্র‍্যাজুয়েট বা মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করে ফেলেছেন। বাকিরা মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে গিয়েছেন। কিন্তু প্রত্যেকেই পড়াশোনার সাথে যুক্ত হয়ে আছেন। নিয়মিত পড়াশোনার মধ্যেই থাকেন।" আপাতত পটাশপুর বিধানসভার ব্লক-১ থেকে যুব সদস্যরা ''অভিষেক সোলজার" সংগঠনে যুক্ত হয়ে গিয়েছেন। এই ব্লকের মধ্যে যে ৯টি গ্রাম পঞ্চায়েত আছে সেখানে নিরন্তর ঘুরে ঘুরে যুব সদস্যদের বাছাই করেছেন।

আগামী দিনে তাঁর লক্ষ্য পটাশপুর ২ নম্বর ব্লকেও একাধিক সংগঠন তৈরি করবেন। বিধায়কের পাখির চোখ, তাঁর নিজের বিধানসভা এলাকায় ২০ হাজার মতো সদস্য তৈরি করে ফেলা। তারপর ধীরে ধীরে নিজের  বিধানসভা এলাকার বাইরেও এই সংগঠন ছড়িয়ে দেওয়া। সংগঠন না হয় তৈরি হল। তা বলে তার নাম "অভিষেক সোলজার" কেন? কী কাজই বা করবে এই সংগঠন? বিধায়ক উত্তম বারিক জানিয়েছেন, "এই মহামারীর সময়ে আমাদের মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। আমাদের সংগঠনের সদস্যরা সেই কাজই করবেন। অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে যাবেন। খাবার পৌঁছে দেবেন। কিন্তু কোথাও গিয়ে আমাদের সংগঠনের সদস্যরা প্রশাসনিক কাজে হস্তক্ষেপ করবেন না। আমাদের কাজ সমান্তরাল ভাবেই মানুষের বিপদে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা। তাদের হাত ধরা।" তা বলে "অভিষেক সোলজার" কেন? উত্তম বাবু জানিয়েছেন, "অভিষেক বন্দোপাধ্যায় যুব সমাজের আইকন। তিনি সর্বদা বলে আসছেন মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। সাহায্য করতে হবে। আমরা তাই ''অভিষেক সোলজার" গঠন করেছি। কিন্তু শুভেন্দুর জেলায় অভিষেক সোলজার নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক আলোচনা।

Published by:Suman Biswas
First published: