• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • রেল লাইনে বিকল মাটি বোঝাই ট্রাক, বন্ধ ট্রেন চলাচল, দুর্ভোগে ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীরা 

রেল লাইনে বিকল মাটি বোঝাই ট্রাক, বন্ধ ট্রেন চলাচল, দুর্ভোগে ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীরা 

ট্রেন চলাচল ব্যাহত হওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার সকালে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীদের

ট্রেন চলাচল ব্যাহত হওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার সকালে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীদের

ট্রেন চলাচল ব্যাহত হওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার সকালে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীদের

  • Share this:

#কাটোয়া: সকাল সকাল কাজে বেরিয়ে যে এভাবে দুর্ভোগে নাজেহাল হতে হবে তা ভেবে উঠতে পারেননি ব্যান্ডেল-কাটোয়া শাখার যাত্রীরা। ট্রেন চলাচল ব্যাহত হওয়ার কারণে বৃহস্পতিবার সকালে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় এই শাখার যাত্রীদের। অনেকে চিকিৎসা-সহ গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনে ট্রেনে চড়েছিলেন। স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে, ট্রেনের কামরায় দীর্ঘক্ষণ আটকে থাকতে হল তাদের। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হতে বেলা গড়িয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার সকালে ঠিক কী ঘটেছিল এই শাখায় ? কাটোয়া ব্যান্ডেল শাখার একটি রেল গেটে রেল লাইনের ওপর বিকল হয়ে যায় মাটি বোঝাই একটি ট্রাক। তার ফলেই এই শাখার আপ ও ডাউন লাইনে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিভিন্ন স্টেশনে আটকে পড়ে লোকাল ট্রেনগুলি। সকাল ন'টা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। ক্রেন এনে ট্রাকটিকে সরাতে বেলা সাড়ে দশটা বেজে যায়। তার পর ট্রেন চলাচল শুরু হয়। যার জেরে আরও বেশ কিছুক্ষন ট্রেন চলাচল অনিয়মিত ছিল।

কাটোয়া ব্যান্ডেল শাখার কালনা ও গুপ্তিপাড়া রেল স্টেশনের মাঝে পূর্ব সাহাপুর মোল্লাবাড়ি রেলগেট। এই রেলগেট খোলা থাকাকালীন মাটি বোঝাই একটি ট্রাক রেল লাইনের ওপর বিকল হয়ে গেলে এই বিপত্তি ঘটে। তার জেরে কালনা ধাত্রীগ্রাম-সহ বিভিন্ন স্টেশনে বিভিন্ন লোকাল ট্রেন দাঁড়িয়ে পড়ে। তার প্রভাব পড়ে আপ লাইনে ট্রেন চলাচলের ক্ষেত্রেও। যাত্রীরা জানান, সকালে ট্রেন ধরতে এসে দেড় ঘন্টার ওপর অপেক্ষা করতে হয়েছে। স্টেশনে এসে তাঁরা জানতে পারেন রেল লাইনে মাটি বোঝাই ট্রাক খারাপ হয়ে যাওয়ায় ট্রেন চলাচল বন্ধ। অনেকেরই গুরুত্বপূর্ণ কাজ ছিল। সময়ে পৌঁছনোর ব্যাপার ছিল, অনেক মুমুর্ষু রোগীও ছিলেন। সকলকেই চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। কিছুদিন আগে রেল গেটের সমস্যার কারণে এই শাখায় ট্রেন চলাচলে বিঘ্ন ঘটেছিল। রেলগেট বন্ধ না করেই দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী ঘুমিয়ে পড়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। তার জেরে বিভিন্ন স্টেশনে দাঁড়িয়ে থাকে লোকাল ও দূরপাল্লার ট্রেন। ডাকাডাকি করে কর্মীর ঘুম ভাঙিয়ে সেবার পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়েছিল।

SARADINDU GHOSH

Published by:Rukmini Mazumder
First published: