• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • পর্যটনের প্রসারে আসছে স্বদেশ দর্শন, জুড়বে বেলুর মঠ থেকে দিঘা-মন্দারমনি

পর্যটনের প্রসারে আসছে স্বদেশ দর্শন, জুড়বে বেলুর মঠ থেকে দিঘা-মন্দারমনি

সমুদ্র সার্কিটের মধ্যে থাকবে দিঘা, তাজপুর, মন্দারমণির একটা অংশ। প্রসাদ সার্কিটের মধ্যে বাংলা থেকে জায়গা পেয়েছে হাওড়ার বেলুড় মঠ।

সমুদ্র সার্কিটের মধ্যে থাকবে দিঘা, তাজপুর, মন্দারমণির একটা অংশ। প্রসাদ সার্কিটের মধ্যে বাংলা থেকে জায়গা পেয়েছে হাওড়ার বেলুড় মঠ।

সমুদ্র সার্কিটের মধ্যে থাকবে দিঘা, তাজপুর, মন্দারমণির একটা অংশ। প্রসাদ সার্কিটের মধ্যে বাংলা থেকে জায়গা পেয়েছে হাওড়ার বেলুড় মঠ।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ভারতীয় পর্যটনের প্রসারে নয়া দিশারী 'স্বদেশ দর্শন' এমনই ভাবনা কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রকের। বিশ্ব পর্যটন দিবসের আগের দিন একথাই জানালেন পর্যটন মন্ত্রকের পূর্বাচঞ্চলের অধিকর্তা সাগ্নিক চৌধুরী।

কী এই স্বদেশ দর্শন?  এর আওতায় থাকবে বেশ কয়েকটি সার্কিট। ধর্মীয় সার্কিট, সমুদ্র সার্কিট, ডেজার্ট সার্কিট, প্রসাদ সার্কিট, মাউন্টেন সার্কিট সহ আরো বেশ কয়েকটি। ধর্মীয় সার্কিটের মধ্যে থাকছে বৌদ্ধ দর্শন। অর্থাৎ সিকিম, কালিম্পং, নেপালের একটা বড় অংশ নিয়ে গড়ে উঠবে এই সার্কিট। যেখানে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা বেড়াতে যেতে পারবেন।

আবার সমুদ্র সার্কিটের মধ্যে থাকবে দিঘা, তাজপুর, মন্দারমণির একটা অংশ। প্রসাদ সার্কিটের মধ্যে বাংলা থেকে জায়গা পেয়েছে হাওড়ার বেলুড় মঠ। সঙ্গে শৈলশহর দার্জিলিং, সিকিমকে নিয়ে একটি সার্কিট। পর্যটনে নতুন দিগন্ত খুলে দেবে এই স্বদেশ দর্শন। এমনটাই মনে করছেন পর্যটন মন্ত্রকের অধিকর্তা।

এজন্যে বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষকে ৩০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে। নতুন সাজে সেজে উঠবে বেলুর মঠ। এমন উদ্যোগে খুশি ইস্টার্ন হিমালয়ান ট্র‍্যাভেল এণ্ড ট্যুর অপারেটার্স এসোসিয়েশনের সম্পাদক সন্দীপন ঘোষ। তাঁর কথায়, এই পরিকল্পনা নতুন দিশা দেখাবে পর্যটন শিল্পে। করোনা এবং লকডাউনে সবচাইতে ক্ষতি হয়েছে পর্যটন শিল্পের। কয়েকশো কোটি টাকার ক্ষতি। বহু লোক কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। অনেক নামী হোটেল বন্ধ হয়ে গিয়েছে। আনলক ৪-এ ধীরে ধীরে মাথা তোলার জায়গা খুঁজছে পর্যটন শিল্প। এখনও রেল পরিষেবা চালু হয়নি। তা চালু হলে কিছুটা ভিড় জমবে উত্তরের পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক পর্যটনের প্রসারও বাড়াতে উদ্যোগী মন্ত্রক। বাংলাদেশ, ভুটান এবং মায়ানমারের মধ্যে পর্যটনের প্রসারের পরিকল্পনা রয়েছে।

এ জন্যে বাংলাদেশে দুটো রোড শো'ও করতে উদ্যোগী কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রক। প্রস্তাব এসছে ভুটান ও মায়ানমার থেকেও। সেখানেও রোড শো হবে। ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরতে মরিয়া পর্যটন ব্যবসায়ীরা। আজ থেকেই দু'দিনের বিশ্ব পর্যটন দিবসের অনুষ্ঠান শুরু হল, সূচনা করেন পর্যটন মন্ত্রকের অধিকর্তা।

Published by:Arka Deb
First published: