দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর নামে বিজেপি-র পার্টি অফিস! বিতর্ক বর্ধমানে

বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর নামে বিজেপি-র পার্টি অফিস! বিতর্ক বর্ধমানে
বর্ধমানে বিজেপি-র নতুন জেলা অফিস৷

তৃণমূল, সিপিএম সকলেরই বক্তব্য রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে রাসবিহারী বসুর নাম ব্যবহার করে তাঁকে অসম্মান করেছে বিজেপি।

  • Share this:

#বর্ধমান: বিজেপি-র বর্ধমানে জেলা কার্যালয়ের নামকরণকে ঘিরে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। বর্ধমানের ঘোড়দৌড়চটি এলাকায় জি টি রোডের পাশে বিজেপির বিশাল জেলা অফিস তৈরি করা হয়েছে। নবনির্মিত এই পার্টি অফিসের নাম দেওয়া হয়েছে বিপ্লবী রাসবিহারী বসু ভবন। মহান এই বিপ্লবীর নামে বিজেপি তাদের দলীয় অফিসের নামকরণ করায় তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

তৃণমূল, সিপিএম সকলেরই বক্তব্য রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে রাসবিহারী বসুর নাম ব্যবহার করে তাঁকে অসম্মান করেছে বিজেপি। অন্যদিকে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, জেলার কৃতী সন্তান মহান এই স্বাধীনতা সংগ্রামীকে সম্মান জানাতেই তাঁর নামে দলীয় কার্যালয়ের নামকরণ করা হয়েছে।

পূর্ব বর্ধমান জেলার রায়না সুবলদহ গ্রামে জন্ম রাসবিহারী বসুর। দেশকে স্বাধীন করতে তিনি ইংরেজ বিরোধী আন্দোলনে যোগ দেন। ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল আর্মির সংগঠক হিসেবে কাজ করেন। দেশের বাইরে সিঙ্গাপুরে আজাদ হিন্দ ফৌজ গঠন করেন তিনি। পরবর্তী সময়ে তা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর হাতে তুলে দেন।

চলতি মাসেই বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার এই অফিস উদ্বোধন করার কথা ছিল। সেই মতো কার্যালয় সাজিয়ে তোলার পাশাপাশি নামকরণ সেরে ফেলা হয়। ইতিহাসবিদ থেকে শুরু করে জেলার ইতিহাস মনস্ক ব্যক্তিরা বলছেন,দেশকে স্বাধীন করাই একমাত্র লক্ষ্য ছিল মহান বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর। তিনি সহিংস বা অহিংস কোনও রাজনৈতিক মতাদর্শে বিশ্বাসী ছিলেন না। সেকাজে তাঁর বিন্দুমাত্র আগ্রহ ছিল না। সরাসরি লড়াই সংগ্রামের মাধ্যমে স্বাধীনতা ছিনিয়ে নেওয়াই তাঁর লক্ষ্য ছিল। তাই রাজনীতির ক্ষুদ্র আবর্তে তাঁকে নিয়ে আসা উচিত নয়। তাঁর নামে কোনও রাজনৈতিক দলেরই কার্যালয়ের নামকরণ সমর্থন যোগ্য নয়।

সিপিএম জেলা নেতৃত্বের বক্তব্য, স্বাধীনতা আন্দোলনে বিজেপির কোনও ভূমিকা ছিল না। অতীতের পাপ স্খলনের জন্য এখন তারা কথায় কথায় বিপ্লবীদের নাম নিচ্ছে ও স্বাধীনতা সংগ্রামীদের নাম ব্যবহার করছে।

তৃণমূলের অভিযোগ, বিজেপি-র কোনও সংস্কৃতি নেই। বাঙালির আবেগ ও সংস্কৃতির প্রতি তাদের কোনও শ্রদ্ধা নেই। সেজন্যই তারা এই কাজ করতে পেরেছে।

যদিও তৃণমূল বা সিপিএমের এই সমালোচনাকে পাত্তা দিতে নারাজ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। তাদের বক্তব্য, 'আগের বাম সরকার ও বর্তমানের তৃণমূল সরকার- কেউই বাংলার বিপ্লবীদের যোগ্য সম্মান দেয়নি। রাসবিহারী বসু আমাদের জেলার সন্তান। আন্তর্জাতিক স্তরে তাঁর পরিচিতি। তাঁর নামে জেলা অফিসের নামকরণ করতে পেরে আমরা গর্বিত।'

Saradindu Ghosh

Published by: Debamoy Ghosh
First published: November 20, 2020, 3:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर