নেশা মুক্তি কেন্দ্রে চিকিৎসা চলছিল যুবকের ! সেখানেই খুন হলেন তিনি !

নেশায় বুদ হয়ে থাকত দিনরাত্রি। একটা সময় বাড়ির বেশকিছু সামগ্রী ভাঙচুর করে, খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

নেশায় বুদ হয়ে থাকত দিনরাত্রি। একটা সময় বাড়ির বেশকিছু সামগ্রী ভাঙচুর করে, খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

  • Share this:

#বীরভূম: নেশা মুক্তি কেন্দ্রে চিকিৎসা চলছিল যুবকের ! সে ওই কেন্দ্রেই থাকত।  বীরভূমের সিউড়ীর দুই নম্বর ব্লকের অন্তর্গত পতন্ডা গ্রামের বাসিন্দা বিশ্বজিৎ ধীবর। বয়স ২৪ বছর।  এই যুবককে কেন্দ্রের মধ্যেই খুনকরার অভিযোগ ওঠে।

কয়েক মাস ধরেই নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছিল সে। নেশায় বুদ হয়ে থাকত দিনরাত্রি। একটা সময় বাড়ির বেশকিছু সামগ্রী ভাঙচুর করে, খড়ের গাদায় আগুন ধরিয়ে দেয়। এই ধরনের বিভিন্ন উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে যায় পরিবারের লোকজন। গত ১৪ ই ফেব্রুয়ারি বীরভূমের সিউড়ি ছোড়া গ্রামের একটি নেশা মুক্তি কেন্দ্রতে তাকে ভর্তি করা হয়। রবিবার সকালে নেশা মুক্তি কেন্দ্রের পক্ষ থেকে পরিবারের লোককে ফোন করা হয় এবং জানানো হয় শ্বাসকষ্ট শুরু হয়েছে তাদের নেশা মুক্তি কেন্দ্রে ভর্তি থাকা বিশ্বজিৎ  ধীবরের। এর কিছুক্ষণ পরে ফের ফোন করে বলা হয় মৃত্যু হয়েছে তার। এরপরই উত্তেজিত হয়ে পড়ে বাড়ির লোকজন। তাদের অভিযোগ খুন করা হয়েছে তাদের ছেলেকে, অতিরিক্ত মারধরের জন্যই মারা গেছে সে। প্রথমে সিউড়ি সদর হাসপাতালে যায় বাড়ির লোক,  সেখানে দেহ খুঁজে না পাওয়ায় নেশা মুক্তি কেন্দ্র গিয়ে উপস্থিত হয় কয়েকজন গ্রামবাসী। গালিগালাজ শুরু করে সেখানে। তৎক্ষণাৎ সেখানে গিয়ে উপস্থিত হয় সিউড়ি থানার পুলিশ। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে পুলিশ। তবে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

SUPRATIM DAS 

Published by:Piya Banerjee
First published: