বর্ধমানে সোনা লুঠের ঘটনায় যুক্ত দুষ্কৃতীদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকার অভিযোগে ধৃত ১ !

ধৃতকে মঙ্গলবার বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুষ্কৃতীদের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলবে বলে আশাবাদী তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা।

ধৃতকে মঙ্গলবার বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুষ্কৃতীদের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলবে বলে আশাবাদী তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা।

  • Share this:

#বর্ধমান:  বর্ধমানে স্বর্ণঋনদানকারী সংস্থায় লুঠ ও গুলি চালানোর ঘটনায় দুষ্কৃতীদের লিংক ম্যান সন্দেহে নিউটাউন থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করল পুলিশ। ধৃতের নাম বিপ্লব রায়। তাকে নিউটাউনের প্রমোদগড় এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধৃতকে মঙ্গলবার বর্ধমান আদালতে তোলা হয়। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুষ্কৃতীদের বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলবে বলে আশাবাদী তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা।

গত ১৭ জুলাই বেলা ১টা নাগাদ বর্ধমান থানার ঢিল ছোঁড়া দূরত্বে বি সি রোডে স্বর্ণঋনদানকারী সংস্থায় দুঃসাহসিক লুঠ হয়। আমানতকারী সেজে এসে পাঁচ-ছ জন দুষ্কৃতী ওই সংস্থায় ঢুকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে খুন করার ভয় দেখিয়ে লুঠপাট চালায়। সব কর্মীদের এক জায়গায় আটকে রেখে মাথায় রিভলভার ঠেকিয়ে ম্যানেজারকে তারা ভল্ট খুলতে বাধ্য করায়। এরপর অন্তত ৩০ কেজি সোনা ব্যাগে ভরে চম্পট দেয় তারা। পালানোর সময় তারা গুলিও চালায়। গুলিতে জখম হন এক ব্যক্তি। এরপর মোটর সাইকেলে দুষ্কৃতীরা চম্পট দেয়। বর্ধমান শহর ছাড়িয়ে সদরঘাট  কৃষকসেতু পার হয়ে খন্ডঘোষ দিয়ে গোঘাট হয়ে তারা চম্পট দেয় বলে পুলিশের অনুমান।

বর্ধমান থানার খুব কাছে এই লুঠপাটের ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়ে পুলিশ। উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত দল গঠিত হয়। তদন্তকারী পুলিশ অফিসারদের সূত্রে জানা গিয়েছে, এই ঘটনার সঙ্গে আন্তরাজ্য দুষ্কৃতী দল সক্রিয়। বিহারের দুষ্কৃতী দল এই ঘটনায় জড়িত বলে প্রাথমিক তদন্তের পর জানা গিয়েছে। এব্যাপারে ওই রাজ্য ও অন্যান্য জেলা পুলিশের সঙ্গেও যোগাযোগ রেখে চলা হচ্ছে। বিভিন্ন সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বিপ্লব রায়ের কথা জানতে পারে পুলিশ। ওই দুষ্কৃতীদের কয়েকজন নিউটাউন এলাকায় ডেরা নিয়েছিল।

তাদের সঙ্গে বিপ্লবের যোগাযোগ রয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়ার পরই জেলা পুলিশের তদন্তকারী অফিসাররা অভিযান চালায়। নিউটাউন থেকে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসা হয়। তাকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চালাবে পুলিশ। তবে অভিযুক্ত নিজেকে সম্পূর্ণ নির্দোষ বলে দাবি করেছে। জেলা পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, একজনকে গ্রেফতার করে নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে দুষ্কৃতীদের সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলবে বলে আশা করা হচ্ছে।

শরদিন্দু ঘোষ

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: