• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • সরকারি হাসপাতালের গাফিলতিতে পা খোয়াল দেড় মাসের শিশু

সরকারি হাসপাতালের গাফিলতিতে পা খোয়াল দেড় মাসের শিশু

সরকারি হাসপাতালগুলির বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

সরকারি হাসপাতালগুলির বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

সরকারি হাসপাতালগুলির বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

  • Share this:

    #বাঁকুড়া: সরকারি হাসপাতালগুলির বিরুদ্ধে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ দীর্ঘদিনের। সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগের পর, এধরনের একের পর এক গাফিলতির অভিযোগ সামনে আসছে। সেরকমই একটি ঘটনা  বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের। যেখানে চিকিৎসার গাফিলতিতে পা খুইয়েছে দেড় মাসের শিশু। অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জানিয়েছে শিশুর পরিবার।

    কোনও বেসরকারি হাসপাতাল নয়। খোদ সরকারি হাসপাতালের এক চিকিৎসকের গাফিলতিতে পা বাদ গেল দেড় মাসের শিশুর। মর্মান্তিক ঘটনা বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের। কীভাবে বাদ গেল শিশুর পা?

    পা খোয়াল শিশু!

    - ৬ জানুয়ারি জন্মের সময় থেকেই ডান পায়ের পাতাটি সামান্য বাঁকা ছিল শিশুটির - জানুয়ারির শেষে হাসপাতালে পায়ের চিকিৎসা করাতে যায় শিশুর পরিবার - হাসপাতালের আউটডোরে ঋত্বিক নামে এক চিকিৎসক শিশুর পায়ে প্লাস্টার করে দেন - প্লাস্টারের কয়েকদিন পর থেকেই দিনভর কাঁদতে শুরু করে শিশুটি - ফের শিশুটিকে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যায় তার পরিবার - শিশুর পায়ে প্লাস্টারের অংশ পচে গিয়েছে বলে জানা যায় - এরপরই তড়িঘড়ি শিশুটিকে কলকাতা নিয়ে আসার পরামর্শ দেন চিকিৎসকরা - এনআরএস-এ নিয়ে এলে শিশুটির ডান পায়ের হাঁটুর নীচ থেকে বাদ দেন চিকিৎসকরা

    পরিবারের অভিযোগ, সরকারি হাসপাতালের গাফিলতিতেই পা বাদ গেছে মাস দেড়েকের শিশুটির। মঙ্গলবার বাঁকুড়া সম্মিলনীর চিকিৎসক ঋত্বিকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও দায়ের করেন তাঁরা।

    কোলের বাচ্চার নাম এখনও ঠিক করে উঠতে পারেনি বাঁকুড়ার ছাতনার সিভিক ভলান্টিয়ার শান্তিময় মণ্ডল ও তাঁর স্ত্রী। তার আগেই চিকিৎসকের ভুলে পা খোয়াল শিশুটি। বড় হয়ে আর পাঁচটা বাচ্চার মতো খেলতে পারবে না সে। মা-বাবাকে নিজের প্রতিবন্ধকতা নিয়ে প্রশ্ন করলে, কী উত্তর দেবেন তাঁরা? এইসব ভেবেই চোখের জল ফেলছেন ছাতনার দম্পতি।

    বুধবার বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ পার্থ প্রতিম প্রধান এর কাছে লিখিত অভিযোগ জানাল শিশুর পরিবার।  সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করল মেডিক্যাল কলেজ।  এই তদন্ত কমিটিতে থাকছে অর্থোপেডিক, পেডিয়াট্রিক, নার্সিং  সহ বিভিন্ন দফতরের পাঁচ জন প্রতিনিধি। আগামী ৫ দিনের মধ্যে ওই কমিটিকে প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্ট ও ১৫ দিনের মধ্যে বিস্তারিত রিপোর্ট পেশের নির্দেশ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ৷

    First published: