দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

প্রথম দিনেই পূর্ব বর্ধমানে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে উপস্থিতি প্রায় ১০ হাজার

প্রথম দিনেই পূর্ব বর্ধমানে দুয়ারে সরকারের ক্যাম্পে উপস্থিতি প্রায় ১০ হাজার

অন্যান্য জেলার সঙ্গে পূর্ব বর্ধমান জেলায় মঙ্গলবার থেকে এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এলাকায় এলাকায় শিবির খুলে সব প্রকল্পের জন্য নাম নথিভুক্ত করা কাজ চলছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় দুয়ারে সরকারের প্রথম দিনেই প্রায় দশ হাজারের কাছাকাছি আবেদন জমা পড়লো। অনেকেই সরকারি প্রকল্পে নাম তোলার জন্য দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করেছেন। বাসিন্দারা আগ্রহের সঙ্গে দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ায় খুশি জেলা প্রশাসন। গতকাল দুয়ারে সরকার কর্মসূচির প্রথম দিনে পূর্ব বর্ধমান জেলায় আঠারোটি জায়গায় বিশেষ ক্যাম্প করা হয়। অনেক জায়গাতেই বাসিন্দাদের ভিড়ের কারণে অনেক রাত পর্যন্ত ক্যাম্প চালু রাখা হয়। প্রথম দিনেই রাত আটটা পর্যন্ত ক্যাম্পগুলিতে 9401 বাসিন্দা উপস্থিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

রাজ্য সরকার বাসিন্দাদের জন্য নানান প্রকল্প হাতে নিলেও প্রচারের অভাবে অনেকেই সেসব ব্যাপারে বিস্তারিতভাবে অবহিত নন বলে অভিযোগ উঠছিল বারেবারেই। তাছাড়া সেইসব প্রকল্পের পরিষেবা কোথায় কিভাবে পাওয়া যাবে সে ব্যাপারেও অনেকের মধ্যে পরিষ্কার ধারণা ছিল না। ফলে বাসিন্দাদের অনেকেই এইসব প্রকল্পের ব্যাপারে আগ্রহ হারাচ্ছিলেন। সরকারি সেইসব প্রকল্পের সুবিধা বাসিন্দাদের ঘরে পৌঁছে দিতেই এই দুয়ারে সরকার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে রাজ্যজুড়ে।

অন্যান্য জেলার সঙ্গে পূর্ব বর্ধমান জেলায় মঙ্গলবার থেকে এই কর্মসূচি শুরু হয়েছে। এলাকায় এলাকায় শিবির খুলে সব প্রকল্পের জন্য নাম নথিভুক্ত করা কাজ চলছে। আবেদন খতিয়ে দেখে খুব কম সময়ে যাতে বাসিন্দাদের কাছে পরিষেবা পৌঁচ্ছে দেওয়া যায় তাও নিশ্চিত করা হবে বলে প্রশাসনিক আধিকারিকরা জানিয়েছেন। জেলা প্রশাসনের এক পদস্হ আধিকারিক জানান, শিবির খুলে কন্যাশ্রী, রূপশ্রী,শিক্ষাশ্রী, ঐক্যশ্রী, স্বাস্থ্যসাথী, কৃষক বন্ধু,খাদ্য সাথী, জাতিগত শংসাপত্র, একশো দিনের কাজ, জয় জোহার,তপশিলি বন্ধু প্রকল্পে নাম নথিভুক্ত করা হচ্ছে।

বাসিন্দাদের অনেকেই সরকারি আধিকারিকদের কাছে পেয়ে বিভিন্ন প্রকল্পের ব্যাপারে বিস্তারিত জেনে নিচ্ছেন। আবার ঘরের সামনে ক্যাম্প হতে দেখে লাইনে দাঁড়াচ্ছেন মহিলা, বয়স্কদের অনেকেই। জেলা প্রশাসন জানিয়েছে প্রায় দশ হাজার আবেদনের মধ্যে অনেকেই স্বাস্থ্য সাথী কার্ড পেতে উৎসাহ দেখিয়েছেন। বাসিন্দাদের কাছ থেকে অন্যান্য সমস্যার কথা শুনে তা লিপিবদ্ধ করা হচ্ছে।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: December 2, 2020, 12:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर