corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমানে বৃদ্ধ খুন, আলমারির গায়ে মিলল আততায়ীর হাতের ছাপ !

বর্ধমানে বৃদ্ধ খুন, আলমারির গায়ে মিলল আততায়ীর হাতের ছাপ !

বৃদ্ধের মৃতদেহের পাশে একাধিক ব্যক্তির পায়ের ছাপও মিলেছে। তাই খুনের সময় আততায়ী একাই ছিল,নাকি একাধিক জন তার সঙ্গে বৃদ্ধের ঘরে ঢুকেছিল সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে চাইছে তদন্তকারীরা।

  • Share this:

#বর্ধমান: আলমারির গায়ে মিলল আততায়ীর হাতের আঙুলের ছাপ। বর্ধমান শহরের তেজগঞ্জে বৃদ্ধ খুনের ঘটনায় তদন্ত নামল সিআইডি। তাদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট বিশেষজ্ঞরা দীর্ঘক্ষণ ধরে পর্যবেক্ষণ চালালেন। সেই তদন্তে তাঁরা আলমারির গায়ে আততায়ীর হাতের আঙ্গুলের ছাপ পেয়েছেন। সেই সঙ্গে বৃদ্ধের মৃতদেহের পাশে একাধিক ব্যক্তির পায়ের ছাপও মিলেছে। তাই খুনের সময় আততায়ী একাই ছিল,নাকি একাধিক জন তার সঙ্গে বৃদ্ধের ঘরে ঢুকেছিল সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে চাইছে তদন্তকারীরা।

বর্ধমান শহরের তেজগঞ্জ হাই স্কুল পাড়ায় বৃহস্পতিবার গোরাচাঁদ দত্ত নামে এক চুরাশি বছর বয়সী বৃদ্ধ খুন হন। তিনি ও তার স্ত্রী মীরা দেবী ওই বাড়িতে থাকতেন। সেদিন সকালে মীরা দেবী শহরেই বোনের বাড়ি বেড়াতে যান। বাড়িতে একাই ছিলেন গোরাচাঁদ বাবু। বিকেলে বাড়ি ফিরে মীরা দেবী দেখেন ঘরের দরজা খোলা। বারান্দায় হলুদ গেঞ্জি পরা এক ব্যক্তি দাঁড়িয়ে রয়েছে। অপরিচিত সেই ব্যক্তিকে আসার কারণ জানতে চাওয়ায় সে জানায়, ভেতরে গিয়ে দেখুন কি হয়েছে। মীরা দেবী ঘরে ঢুকে স্বামীর রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। বাইরে এসে মাঝবয়সী সেই ব্যক্তিকে আর দেখতে পাননি তিনি। এই খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলা জুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা বলছেন, আঘাতের ধরণ দেখে স্পষ্ট পেছন থেকে ঘাড়ে ধারালো অস্ত্র সজোরে ঢুকিয়ে খুন করা হয়েছে। আততায়ী গোরাচাঁদ বাবুর পরিচিত না অপরিচিত সেই বিষয়ে এখন তদন্তে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে। কারণ বাড়ির দরজায় সবসময় তালা দেওয়া থাকতো। অপরিচিত ব্যক্তি দেখলে তালা খুলতেন না গোরাচাঁদবাবু। তাই পরিচিত ব্যক্তি দেখে তিনি তালা খুলেছিলেন কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

জানা গিয়েছে, পাড়ার দোকানে বিস্কুট কিনতে গিয়েছিলেন গোরাচাঁদবাবু। সেসময় তিনি তালা খোলা রেখে দোকানে গিয়েছিলেন কিনা, সেই সুযোগে আততায়ীরা ভেতরে ঢুকে ছিল কিনা তদন্তে সব দিকই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বাড়ির আলমারি ছিল তছনছ করা অবস্থায়। তদন্ত চলায় গোরাচাঁদবাবুর স্ত্রী আলমারি কাছে যেতে পারেননি। তাঁর ধারণা বাড়ি ও জমির কিছু কাগজপত্র ও অন্যান্য কিছু নথিপত্র খোয়া গিয়েছে। টাকা-পয়সা, গয়নাগাটি বাড়িতে বিশেষ ছিল না। তাই কি কারনে এই খুন তা নিয়ে রহস্য বাড়ছে। সম্পত্তি নিয়ে কারও সঙ্গে কোনও শরিকি বিবাদ ছিল কিনা সেসব খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তবে দিনের আলোয় নৃশংসভাবে বৃদ্ধকে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে শহর জুড়ে। বৃহস্পতিবার রাতেই পুলিশ কুকুর এনে তদন্ত হয়। এলেন সিআইডির ফিঙ্গারপ্রিন্ট বিশেষজ্ঞরাও। এরপর ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরাও তদন্ত করবেন বলে জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: July 4, 2020, 4:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर