নতুন লাইনের জন্য ভেঙে ফেলা হবে বর্ধমান রেল স্টেশনের প্রাচীন ভবন

নতুন লাইনের জন্য ভেঙে ফেলা হবে বর্ধমান রেল স্টেশনের প্রাচীন ভবন

ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে রেল।

  • Share this:

#বর্ধমান: ভেঙে ফেলা হবে বর্ধমান রেল স্টেশন বিল্ডিং। ডানকুনি লুধিয়ানা ফ্রেড করিডর তৈরির জন্য ভাঙতে হবে ঐতিহাসিক প্রাচীন এই বিল্ডিং। ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছে রেল। ভাঙতেই যখন হবে তখন লাখ লাখ টাকা খরচ করে তার সৌন্দর্যায়ন করা হচ্ছে কেন তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন তুলছেন যাত্রীরা। কেনই বা তবে রাত দিন এক করে আগের মতো করে গড়ে তোলা হল স্টেশন বিল্ডিংয়ের পোর্টিকো- প্রশ্ন শহরের বাসিন্দাদের। বুধবার বর্ধমান রেল স্টেশনে আধিকারিকদের নিয়ে পরিদর্শনে আসেন পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজার সুনীত শর্মা। তিনি স্টেশনের উন্নয়নের কাজ পরিদর্শন করেন। ঘুরে দেখেন বিভিন্ন ওয়েটিং রুম। ট্রেন চালক গার্ডদের বিশ্রামের কি পরিকাঠামো রয়েছে তা দেখেন তিনি। রেলের পরিষেবা নিয়ে কথা বলেন যাত্রীদের সঙ্গেও। পরিদর্শনের পর পূর্ব রেলের জিএম সুনীত শর্মা জানান, নতুন করে তৈরি করা হবে বর্ধমান রেল স্টেশন বিল্ডিং। কারণ ডানকুনি লুধিয়ানা ফ্রেড করিডরের জন্য আলাদা লাইন পাততে হবে। সেই লাইন যাবে স্টেশন বিল্ডিংয়ের ওপর দিয়েই। তাই সেই বিল্ডিংয়ের কিছু অংশ ভাঙা পড়বে। সেজন্য ইতিমধ্যেই আরও বড় নতুন বিল্ডিং তৈরি করা হবে। তার নকশাও চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। তিনি জানান, বর্ধমান লোকো শেডের আধুনিকীকরণ হচ্ছে। সেখানে ডিজেল শেডের পাশাপাশি ইলেকট্রিক শেডের পরিকাঠামো তৈরি হয়েছে বলেও জানিয়েছেন জিএম।

স্টেশন বিল্ডিং ভাঙার সিদ্ধান্তের খবর জানাজানি হতেই চলতে থাকা কাজ নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন যাত্রীরা। তাঁরা বলছেন, ওয়েটিং রুম থেকে অনেক কিছুই নতুন করে গড়ে তোলা হচ্ছে। এখন চলছে বিল্ডিংয়ের সৌন্দর্যায়নের কাজ। ভেঙেই যখন ফেলা হবে তখন আবার লাখ লাখ টাকা খরচ করে সৌন্দর্যায়ন কেন ভেবে পাচ্ছেন না যাত্রীরা। সংস্কারের সে কাজ চলাকালীন গত চার জানুয়ারি পোর্টিকো-সহ বিল্ডিংয়ের একাংশ ভেঙে পড়েছিল। সে ঘটনায় কাজে যুক্ত ঠিকাদারকে আট লাখ টাকা জরিমানা করে কাজ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাওড়ার ডিআরএম ইশাক খান।

Saradindu Ghosh

First published: March 4, 2020, 6:11 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर