corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনায় দুর্গতদের মুখে খাবার তুলে দিতে খাদ্য এটিএমের উদ্যোগ যুবলিগের

করোনায় দুর্গতদের মুখে খাবার তুলে দিতে খাদ্য এটিএমের উদ্যোগ যুবলিগের

বর্তমানে ম্যানুয়াল হলেও আগামীদিনে ভিয়েতনাম থেকে অটোমেটিক মেশিন আনার চেষ্টা চালানো হবে বলে সংগঠন সূত্রে খবর

  • Share this:
#দেগঙ্গা: করোনা রুখতে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। এই সময় সবচাইতে সমস্যায় পড়েছে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষগুলো। লকডাউনের কারণে রুটিরুজির সন্ধানে  বেরোতে পারছেন না তাঁরা। যদিও এই সমস্যা থেকে তাঁদের মুক্তি দিতে বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি সংস্থা সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছে। বণ্টন করা হচ্ছে খাদ্যদ্রব্য। তারই অঙ্গ হিসেবে যুবলিগের পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষের জন্য খাদ্য সরবরাহের নতুন উদ্যোগ নেওয়া হলো এটিএমের মাধ্যমে। যার পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে ফুড এটিএম। পার্থক্য শুধু একটাই এখানে দাতা এবং গ্রহীতা কেউ কাউকে দেখতে পারবেন না।
ফুড এটিএম। এটিএম এর মতনই দেখতে একটি বাক্স। যেখানে একদিক থেকে টোকেন দিলে অন্য দিক থেকে খাবার পাওয়া যাবে। তবে এটি অটোমেটিক নয় একটি ম্যানুয়াল পদ্ধতি। এটিএম মেশিনের ভেতরে থাকবে রসদ। যে মানুষের যেরকম প্রয়োজন এটিএম এর একটি উইন্ডো থেকে তা জানাতে হবে। পাশের জানালা থেকে দেওয়া হবে খাদ্যদ্রব্য। খাদ্যদ্রব্য দেবেন সংগঠনের কোনো সদস্য। তবে কাকে খাবার দিলেন তা তিনি দেখতে পারবেন না। আবার কার কাছ থেকে খাবার পাওয়া গেল তাকেও দেখা যাবে না। ফরওয়ার্ড ব্লকের যুব সংগঠন যুবলীগের পক্ষ থেকে উত্তর চব্বিশ পরগনার দেগঙ্গায় এই কর্মসূচি করা হয়েছে শুক্রবার। দেগঙ্গা থেকে শুরু হলেও আস্তে আস্তে সারা রাজ্যে এই কর্মসূচি নেওয়া হবে বলে সংগঠন সূত্রে খবর। কেন এই ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হলো? সংগঠনের নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "মানুষের মধ্যে খাবার বন্টনের বিষয়ে যতটা প্রচার হচ্ছে আসলে ততটা হচ্ছে না। অনেক মানুষ কোনও খাবার পাচ্ছেন না। কার্যত অভুক্ত অবস্থায় দিন কাটাতে হচ্ছে তাঁদের। অন্যদিকে রাজনৈতিক দলগুলি খাবার দেওয়ার নাম করে শুধু দলের প্রচার করছেন।
  সেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলির তরফে খাবার দেওয়া হলেও তারা প্রচারের জন্য সেই ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দিচ্ছেন। ফলে খাবার নিতে মানুষ সংকোচ করছেন। সবাই না করলেও একটা বড় অংশ অবশ্যই সেটা করছেন। সেই কারণেই সংগঠনের তরফ থেকে এই ফুড এটিএম এর উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যেখানে কে কাকে খাবার দিলেন এবং কার কাছ থেকে সেই খাবার পাওয়া গেল কেউ কাউকে দেখতে পাবেন না।" এই ফুড এটিএম থেকে কি ধরনের খাবার পাওয়া যাবে? সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, "প্রথমত চাল, ডাল, আলু দিয়ে শুরু হলেও আরো বিভিন্ন ধরনের খাবার দেওয়ারই চিন্তাভাবনা রয়েছে সংগঠনের। তবে যোগানের উপরও নির্ভর করছে বিষয়টা। আঞ্চলিক ভাবে সংগঠনের নেতার যতটুকু সম্ভব পুরোটাই চেষ্টা করবেন।" তবে বর্তমানে ম্যানুয়াল হলেও আগামীদিনে ভিয়েতনাম থেকে অটোমেটিক মেশিন আনার চেষ্টা চালানো হবে বলে সংগঠন সূত্রে খবর ৷ UJJAL ROY
First published: April 17, 2020, 11:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर