ভাইরাস সংক্রমণে একের পর এক কুকুর ছানার মৃত্যু বীরভূমে !

ভাইরাস সংক্রমণে একের পর এক কুকুর ছানার মৃত্যু বীরভূমে !

পার্ভো রোগে সাধারণ ভাবে ১ থেকে ৬ মাস পর্যন্ত বাচ্চা কুকুর আক্রান্ত হয়। কারণ এদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে।

  • Share this:

#বীরভূম: পার্ভো ও ডিসটেম্পার এই দুই রোগে আক্রান্ত হয়ে সম্প্রতি প্রচুর কুকুরের মৃত্যু হয়েছে বীরভূমে। যার প্রকোপ সব থেকে বেশি সিউড়িতে।

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে দিন দিন। পার্ভো রোগে সাধারণ ভাবে ১ থেকে ৬ মাস পর্যন্ত বাচ্চা কুকুর আক্রান্ত হয়। কারণ এদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে। এই রোগে বড়ো কুকুরও আক্রান্ত হয়। সাধারণ ভাবে খাওয়া বন্ধ করে দেওয়া, তার সঙ্গে বমি ও গন্ধযুক্ত মল লক্ষণ এই পার্ভো রোগের।

দিনে দুই বেলা স্যালাইন দিয়ে, তার সঙ্গে হোমিওপ্যাথি ওষুধ, ইঞ্জেকশান দিয়ে এই রোগের  চিকিৎসা করা হয়। তবে চিকিৎসা করলেও কুকুরদের বাঁচানো খুবই মুশকিল হয়ে যাচ্ছে ৷  সেই কারণে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা।  তবে বাচ্চা বয়সে DHPPL ভ্যাকসিন দেওয়া থাকলে কুকুরদের কিছুটা বেশি থাকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

অন্য দিকে ডিস্টেম্পার রোগের প্রধান লক্ষণ খিচুনী, পরে দু-একদিনের মাথায় মৃত্যু। পার্ভো ও ডিসটেমপার দুটি রোগই খুব ছোঁয়াচে ৷ আক্রান্ত কুকুরের মল,  বমির গন্ধ থেকে এই রোগ অন্যান্য কুকুরকে আক্রান্ত করে।  এখনও পর্যন্ত গত ১৫ দিনে এই দুটি রোগের লক্ষণ নিয়ে আসা সিউড়ি প্রাণী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ১০০-রও বেশি কুকুর নিয়ে এসেছে বিভিন্ন প্রাণী বিষয়ক স্বেচ্ছা সেবী সংস্থা। গরমকাল ঠিক ভাবে যতদিন না পড়বে তত দিন এই রোগের প্রকোপ বাড়বে বলেই জানা গিয়েছে ৷

Supratim Das

First published: February 28, 2020, 8:49 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर