Home /News /south-bengal /
BJP: সায়গলে চিঁড়ে ভিজবে না! সাকরেদ নয়, 'আসল'-কে গ্রেফতারের দাবি শমীকের 

BJP: সায়গলে চিঁড়ে ভিজবে না! সাকরেদ নয়, 'আসল'-কে গ্রেফতারের দাবি শমীকের 

BJP: সোজাসাপ্টা নাড্ডাকেই জিজ্ঞেস করে বসেন, কেন্দ্রীয় এজেন্সি এখনও পর্যন্ত একজনকেও গ্রেফতার করতে পারল না কেন?  আচমকা এই প্রশ্নে কিছুটা হকচকিয়ে গেলেও, পরিস্থিতি সামলে মঞ্চ থেকেই নাড্ডা তাকে আশ্বস্ত করে বলেন,'' হবে।  তবে, দেরী হবে।"

আরও পড়ুন...
  • Share this:

 #কলকাতা:  কেন্দ্রীয় এজেন্সির ওপর অনাস্থা, হতাশা প্রকাশ?  না ঘুরিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের ওপরেই আর আস্থা রাখতে পারছে না রাজ্য বিজেপি। সে কারনেই কি ঘুরিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকেই কাঠগড়ায়" দাঁড় করাতে চাইছে তারা ?   বিজেপি কর্মীদের উৎসাহ দিতে রাজ্যে ২ দিনের সফরে এসেছেন সর্বভারতীয় সভাপতি জগৎ প্রকাশ নাড্ডা। নাড্ডা দিল্লি ফিরতেই, তার এই  সফরে দলের কর্মী সমর্থকরা আদৌ কতটা উৎসাহ পেল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে দলের অন্দরেই।

গতকাল, রাজ্য সফরের দ্বিতীয় দিনের অন্তিম অনুষ্ঠান ছিল কলকাতার কলামন্দিরে। নাগরিক সম্মেলন। দলীয় বুদ্ধিজীবীদের একাংশের উপস্থিতিতে নাড্ডা রাজ্যের অপশাসন ও দূর্নীতি নিয়ে সরব হন। বিহারে লালু রাজের দৃষ্টান্ত টেনে নাড্ডা বলেন, দূর্নীতি চিরকাল চলতে পারে না। তৃণমূলের ভয়ঙ্কর দূর্নীতিই তাকে একদিন ক্ষমতাচ্যুত করবে। নাড্ডার এই প্রবচন মেনে নিতে পারেন নি সভার প্রথম সারিতে থাকা এক অনুগামী। সোজাসাপ্টা নাড্ডাকেই জিজ্ঞেস করে বসেন, কেন্দ্রীয় এজেন্সি এখনও পর্যন্ত একজনকেও গ্রেপ্তার করতে পারল না কেন?  আচমকা এই প্রশ্নে কিছুটা হকচকিয়ে গেলেও, পরিস্থিতি সামলে মঞ্চ থেকেই নাড্ডা তাকে আশ্বস্ত করে বলেন,'' হবে।  তবে, দেরী হবে।"

আরও পড়ুন - কেন বার বার থমকে যাচ্ছে বর্ষা! দক্ষিণবঙ্গে বর্ষাকাল কবে থেকে, তারিখ জানিয়ে দিল হাওয়া অফিস

নাড্ডার এই উত্তরে স্বাভাবিকভাবেই সন্তুষ্ট হতে পারেননি উপস্থিত নেতারা। এবার, সংকোচ ঝেড়ে ফেলে সভাঘরের অন্যপ্রান্ত থেকে আরও কয়েকজন সমস্বরে বলে ওঠেন '' আপনারা তো কেন্দ্রে সরকারে রয়েছেন। কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে বলুন, গ্রেফতার করতে।" এবার, আর কথা না বাড়িয়ে হাতজোড় করে নাড্ডা বলেন, আপনাদের সমর্থন ও আশীর্বাদ নিয়ে আমরা রাজনৈতিক ভাবে আইনের পথেই এ রাজ্যে খুব শিগগির ক্ষমতায় আসব। এর পর, অস্বস্তি কাটিয়ে,  নাড্ডা দ্রুত মঞ্চ ছাড়লেও, আজ দেখা গেল বিতর্ক আর হতাশা পিছু ছাড়ছে না রাজ্য বিজেপির। কয়লা ও গরু পাচার কান্ডে বীরভূমের তৃণমূলের জেলা সভাপতি, ডাকসাইটে নেতা অনুব্রত মন্ডলকে সিবিআই একাধিকবার জেরা করলেও, তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি। অনুব্রতকে সিবিআই এর নোটিশ দেওয়ার পরেই রাজ্য বিজেপি নেতা কর্মীরা রীতিমতো আশায় বুক বেঁধেছিল। কিন্তু, যত দিন গড়িয়েছে দলের নিচু থেকে তলায় হতাশা বেড়েছে বই কমে নি।

শেষমেশ, অনুব্রতর সাকরেদ সায়গলকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। কিন্তু, তাতে খুশী হওয়া দূরে থাক, রাজ্য বিজেপির হতাশা আরো বেড়েছে। তারই প্রতিফলন আজ দেখা গেল রাজ্য বিজেপির প্রধান মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের মন্তব্যে৷ এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে শমীক বলেন, '' দেহরক্ষী নয়, মানুষ আসল দেহকে চাইছে।" রাজনৈতিক মহলের মতে, আসলে দেহরক্ষী  সায়গলের গ্রেফতার হতে পারে অনুব্রত তদন্তে একটা বড় পদক্ষেপ সিবিআই-এর। কিন্তু, কেন্দ্রীয় এজেন্সির দীর্ঘসূত্রতা আর তার পরিনতি দেখতে দেখতে দলের সাধারন কর্মী, সমর্থকরা হতাশ আর ক্লান্ত।

ARUP DUTTA
Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Bengal BJP

পরবর্তী খবর