কিশোর-কিশোরীর সম্পর্কে আপত্তি পাড়ার, মধ্যস্থতা করতে গিয়ে খুন, এখনও অধরা অভিযুক্তরা

চব্বিশ ঘণ্টা কেটে গেলেও বিষ্ণুপুরে মধ্যস্থতাকারী খুনে অধরা অভিযুক্ত। পূর্ণচন্দ্র মাঝিকে খুনের ঘটনায় বেশ কয়েকজন জড়িত বলে অনুমান পুলিশের।

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 25, 2017 07:01 PM IST
কিশোর-কিশোরীর সম্পর্কে আপত্তি পাড়ার, মধ্যস্থতা করতে গিয়ে খুন, এখনও অধরা অভিযুক্তরা
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Jan 25, 2017 07:01 PM IST

#বিষ্ণুপুর: চব্বিশ ঘণ্টা কেটে গেলেও বিষ্ণুপুরে মধ্যস্থতাকারী খুনে অধরা অভিযুক্ত। পূর্ণচন্দ্র মাঝিকে খুনের ঘটনায় বেশ কয়েকজন জড়িত বলে অনুমান পুলিশের। কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার না হওয়ায়, প্রশ্ন উঠেছে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে। এদিকে কিশোরীর প্রেমিকের খোঁজ দেওয়ার জন্য, আগেও হুমকি দেওয়ার অভিযোগ তুলেছে কিশোরের বন্ধু।

পাড়ার কিশোরীর সঙ্গে অন্য পাড়ার কিশোরের প্রেমে আপত্তি ছিল বিষ্ণুপুরের ঘোষপাড়ার অভিযুক্ত কিশোর ও তার বন্ধুদের। সেই কারণেই সোমবার কিশোরীর প্রেমিকের বন্ধুকে তারা মারধর করে বলে অভিযোগ। কেড়ে নেওয়া হয় মোবাইল ফোনও। কিন্তু সোমবারই প্রথম নয়। কিশোরীর সঙ্গে কার প্রেম, তা জানানোর জন্য তাঁকে বার বার হুমকি দেওয়া হত বলে অভিযোগ বন্ধুর।

পাড়ার দুর্নাম ঠেকাতে এগিয়ে এসেছিলেন ঘোষপাড়ার বাসিন্দা পূর্ণচন্দ্র মাঝি। ক্ষমা চাইতে বলা হয় মূল অভিযুক্তকে। কিন্তু তা মেনে নিতে রাজি হয়নি অভিযুক্ত নাবালক।

প্রতিশোধ নিতে সোমবার গভীর রাতে খুন করা হয় পূর্ণচন্দ্র মাঝিকে। এরপরই অভিযুক্ত নাবালকের বাড়িতে ভাঙচুর চালান গ্রামবাসীরা। তবে একজন নয়, খুনের ঘটনায় আরও অনেকে জড়িত বলে দাবি পুলিশের। একই মত নিহতের পরিবারেরও।

তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে পালিয়ে যাওয়ার সময় অভিযুক্তের সঙ্গে চার হাজার টাকা ছিল। সেই টাকায় অভিযুক্ত দূরে কোথাও গা ঢাকা দিতে পারে বলে মনে করছে পুলিশ। কিন্তু ঘটনার চব্বিশ ঘণ্টা পরও কাউকে গ্রেফতার করতে না পারায়, পুলিশের ভূমিকা নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন গ্রামবাসীরা।

First published: 06:04:47 PM Jan 25, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर