corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমানে গোষ্ঠী সংক্রমণ চললেও বিধিনিষেধ না মেনে খোলা থাকছে দোকান!

বর্ধমানে গোষ্ঠী সংক্রমণ চললেও বিধিনিষেধ না মেনে খোলা থাকছে দোকান!

বর্ধমান শহরের প্রায় সব এলাকাতেই করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। শুধুমাত্র এই শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিনশোর কাছাকাছি। এছাড়াও এই শহরে ইতিমধ্যেই প্রায় কুড়ি জন বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন।

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনার সংক্রমণ রুখতে বর্ধমান শহরে দোকান বাজার খোলা রাখার ক্ষেত্রে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করা হলেও অনেকেই তা মানছেন না বলে অভিযোগ উঠছে। বেলা এগারোটার পর চায়ের দোকান বন্ধ থাকার কথা প্রশাসন ঘোষণা করলেও শহরের মূল বাজার এলাকাগুলিতে দিনভর অনেক চায়ের দোকান খোলা থাকছে। বি সি রোডসহ জি টি রোডের এক পাশের দোকান একদিন অন্তর খোলার নির্দেশ জারি হলেও দুদিকেই বেশকিছু দোকান খোলা থাকতে দেখা যাচ্ছে। ফলে এই বিধিনিষেধের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন শহরের সচেতন বাসিন্দারা।

তাঁরা বলছেন, বিধি নিষেধ আরোপ করা হলে তা যাতে যথাযথভাবে পালন করা হয় তাও নিশ্চিত করতে হবে প্রশাসনকেই । এ জন্য বাড়তি পুলিশি তৎপরতা প্রয়োজন। কিন্তু বর্ধমান শহরে পুলিশ ও প্রশাসনের মধ্যে তেমন তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না। তার ফলে প্রচুর সংখ্যক বাসিন্দা শহরে ভিড় করছেন। তা থেকেই করানোর সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।

বর্ধমান শহরের প্রায় সব এলাকাতেই করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। শুধুমাত্র এই শহরেই আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় সাড়ে তিনশোর কাছাকাছি। এছাড়াও এই শহরে ইতিমধ্যেই প্রায় কুড়ি জন বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। শহর জুড়ে গোষ্ঠী সংক্রমণ চলছে বলে আগেই জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। বাসিন্দাদের সতর্ক থাকতে বলা হচ্ছে। তবুও বাসিন্দাদের একাংশ জরুরি প্রয়োজন ছাড়াই বাজারে বেরিয়ে পড়ছেন। শহরের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট, পুরসভার সামনে বাসিন্দাদের সচেতন করতে লাগাতার মাইকে প্রচার চালানো হচ্ছে।

প্রশাসন দোকান বাজার খোলার ব্যাপারে যে বিধি-নিষেধ আরোপ করেছিল তাতে দু একটি ক্ষেত্রে সময়ের কিছু পরিবর্তন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের নয়া নির্দেশ অনুযায়ী ভোর চারটে থেকে সকাল সাতটা পর্যন্ত পাইকারি বাজার খোলা থাকবে। সকাল সাতটা থেকে বেলা এগারোটা পর্যন্ত শহরের সবজি বাজার, মাছ বাজার খোলা থাকবে। বর্ধমান স্টেশন বাজার খোলা থাকবে সকাল আটটা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত। চায়ের দোকান ভোর চারটে থেকে বেলা এগারোটা পর্যন্ত খোলা থাকবে। ফলের দোকান খোলা থাকবে বেলা এগারোটা থেকে বিকাল পাঁচটা পর্যন্ত। ফুলের দোকান সকাল সাতটা থেকে বেলা বারোটা পর্যন্ত খোলা থাকবে। অন্যান্য সব দোকান বেলা এগারোটা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

Published by: Pooja Basu
First published: August 13, 2020, 9:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर