‘দাম কমান’, ‘পরে টাকা দেব’...খদ্দেরদের ‘আবদার’ থেকে মুক্তি পেতে কী করলেন দোকানের মালিক ? দেখুন

‘দাম কমান’, ‘পরে টাকা দেব’...খদ্দেরদের ‘আবদার’ থেকে মুক্তি পেতে কী করলেন দোকানের মালিক ? দেখুন

পোস্টার রাখা হয়েছে দোকানের এমন জায়গায়, যাতে দোকানে ঢুকলেই খদ্দেরের তা চোখে পড়বে ৷ অর্থাৎ আবদারের আগেই মুখে কুলুপ দেওয়ার ম্যাজিক রয়েছে এই পোস্টারে।

  • Share this:

Supratim Das

#সিউড়ি: দোকানে আসে বিভিন্ন ধরনের খদ্দের রঙিন মাছ কিনতে। তাদের মধ্যে কারো কারোর আবদার থাকে দাম কমানোর তো, কারোর আবদার ‘এখন নিয়ে যাচ্ছি, পরে দাম দিয়ে যাব।’ অনেক ক্ষেত্রে চেনা মানুষের মুখের উপর না বলা যায় না ৷ তাই নতুন বছরে নতুন পোস্টার সিউড়ির এই রঙিন মাছের দোকান ‘বিশ্বাস অ্যাকোয়ারিয়াম’-এ।

পোস্টার রাখা হয়েছে দোকানের এমন জায়গায়, যাতে দোকানে ঢুকলেই খদ্দেরের তা চোখে পড়বে ৷ অর্থাৎ আবদারের আগেই মুখে কুলুপ দেওয়ার ম্যাজিক রয়েছে এই পোস্টারে।

গত ৬ বছর ধরে সিউড়ির মৎস্য দফতর চত্বরে এই রঙিন মাছের দোকান রয়েছে ৷ মৎস্য দফতরের কাছে লিজ নিয়ে চালানো এই দোকানের মালিক স্মৃতি কাহার ৷ তাঁকে সাহা্য্য করেন তার স্বামী বিশ্বনাথ বিশ্বাস। বিশ্বনাথবাবু মৎস্য দফতরেরই কর্মী। গত ৬ বছর ধরে সিউড়ির মৎস্য দফতর চত্বরের এই অ্যাকুয়ারিয়ামের দোকানে বিভিন্ন রঙিন মাছ ও মৎস্য চাষ সংক্রান্ত বিভিন্ন সামগ্রী বিক্রি হয়।

স্মৃতি কাহার ও বিশ্বনাথ বিশ্বাস স্মৃতি কাহার ও বিশ্বনাথ বিশ্বাস

দূর-দূরান্ত থেকে লোকেরা আসে এখানে তাদের পুকুরে মাছ চাষের জিনিসপত্র কিনতে ও বাড়িতে সাজানো অ্যাকুয়ারিয়ামের জন্য রঙিন মাছ ও অ্যাকুয়ারিয়াম সাজানোর বিভিন্ন জিনিসপত্র কিনতে। কিন্তু দোকানে এসে বিভিন্ন ধরনের আবদার করে থাকেন খদ্দেররা৷ কারোর আবদার একটু দাম কম নিতে হবে আবার কারোর আবদার এখন নিয়ে যাচ্ছি পরে টাকা দিয়ে যাবো। এই আবদারের ভিড়ে বিভিন্ন চেনাজানা লোক থাকলেও তাদেরকে তো অনেক সময় মুখের উপর না বলা যায়না ৷ তাই মুখে না বলা কথা মালিকের হয়ে বলে দিচ্ছে এই পোস্টার। যেখানে লেখা, ‘নগদ টাকায় মাল কিনতে এসে দুটি কথা বলবেন না ৷’

2517_IMG-20200105-WA0060

দোকানের মালিক স্মৃতি কাহার জানিয়েছেন, ‘‘ এই পোস্টার লাগানোর ফলে অনেকটাই কমে গিয়েছে আবদার ৷ কেউ আর সেরকম ভাবে ধার চায় না এখন ৷  অন্যদিকে দাম কমানোর আবদারও কমেছে নতুন বছরে।’’

First published: January 6, 2020, 11:23 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर