দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

বর্ধমান মেডিক্যালে মায়ের কোল থেকে চুরি হয়ে গেল সদ্যোজাত শিশুকন্যা !

বর্ধমান মেডিক্যালে মায়ের কোল থেকে চুরি হয়ে গেল সদ্যোজাত শিশুকন্যা !

পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তল্লাশি শুরু হয়েছে। সব থানা ও পাশের জেলার পুলিশেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। বিভিন্ন রাস্তায় চেকিং চলছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: সরকারি হাসপাতালে মায়ের কোল থেকে চুরি হয়ে গেল  সদ্যোজাত শিশুকন্যা। রবিবার বর্ধমান মেডিক্যালে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটেছে। শিশুকন্যা হওয়ায় সরকারি আর্থিক সাহায্য মিলবে জানিয়ে সদ্যোজাত-সহ দম্পতিকে বর্ধমান মেডিক্যালের সুপার স্পেশ্যালিটি উইং অনাময় হাসপাতালে নিয়ে যায় ওই মহিলা। নিজের নাম রিয়া বন্দ্যোপাধ্যায় জানান মহিলা। স্বামী স্ত্রীকে আলাদা করে দিয়ে শিশুকন্যাকে নিয়ে চম্পট দেয় ওই মহিলা।

রিমা মালিক। স্বামী সন্দীপ মালিক। বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের রায়নায়। শুক্রবার রিমা বর্ধমান মেডিকেলে  কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। রবিবার সকালে ছুটি দেয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। প্রসূতি বিভাগের নিচে নামতেই ওই মহিলা সরকারি সাহায্য মিলেছে কিনা জানতে চান।

কন্যা সন্তান জন্ম দেওয়ার জন্য ৬ হাজার টাকা সরকারি সাহায্য মিলবে জানিয়ে তার ব্যবস্থা করে দেওয়ার আশ্বাস দেন। ওই মহিলা শিশুকন্যা-সহ দম্পতি ও রিমার মাকে টোটোয় চাপিয়ে বর্ধমান মেডিকেলের সুপার স্পেশ্যালিটি উইং অনাময় হাসপাতালে নিয়ে যায়।

সেখানে শিশুকন্যা-সহ মাকে দাঁড় করিয়ে স্বামী সন্দীপকে দোতলার একটি ঘরের সামনে নিয়ে গিয়ে সেখানে অপেক্ষা করতে বলেন। জানান, কিছুক্ষণের মধ্যেই নাম ডেকে টাকা দেবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ।

সন্দীপকে দাঁড় করিয়ে নিচে নেমে এসে  শিশুর ওজন করাতে হবে জানিয়ে শিশুকন্যাকে মায়ের কোল থেকে নিয়ে নেয় ওই মহিলা।

এরপরই রিয়া বন্দ্যোপাধ্যায় নামের ওই মহিলা চম্পট দেয়। বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেপুটি সুপার অমিতাভ সাহা বলেন, সিসি টিভি ফুটেজে ঘটনা ধরা পড়েছে। ওই মহিলা একা ছিল নাকি সঙ্গে আরও কেউ ছিল তা দেখা হচ্ছে।একটি চক্র এই কাজে জড়িত বলে মনে করা হচ্ছে।

পুলিশ সুপার ভাস্কর মুখোপাধ্যায় বলেন, ঘটনার খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তল্লাশি শুরু হয়েছে। সব থানা ও পাশের জেলার পুলিশেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। বিভিন্ন রাস্তায় চেকিং চলছে। সিসিটিভি ফুটেজ  খতিয়ে দেখে মহিলার হদিশ পাওয়ার চেষ্টা চলছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: January 19, 2020, 8:58 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर