Bardhaman News: পথে পড়ে সদ্যোজাত, শিশুকে নিয়ে যা করলেন এলাকার এক আয়া! শোরগোল কাটোয়ায়

উদ্ধার সদ্যোজাত (প্রতীকী ছবি)

Bardhaman News: শিশুটিকে পূর্ব বর্ধমান জেলা চাইল্ড লাইনের হোমে আপাতত রাখা হবে বলে জানান আধিকারিক সুচেতনা ভট্টাচার্য।

  • Share this:

    #বর্ধমান: রাস্তায় ফেলে যাওয়া সদ্যোজাতকে উদ্ধার করে প্রশাসনের হাতে তুলে দিলেন এক মহিলা। পেশায় বেসরকারি নার্সিংহোমের আয়া মামনি হাজরার মানবিক মুখ এক শিশুকন্যার প্রাণ বাঁচাল। কাটোয়া টেলিফোন ময়দানের এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। সংবাদ মাধ্যমের কাছে খবর পেয়ে জেলা চাইল্ড লাইনের আধিকারিক কাটোয়া থানার পুলিশের সাহায্যে শিশু কন্যাটিকে উদ্ধার করে আপাতত কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। শিশুটির অবস্থা এখন স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে। শিশুটিকে পূর্ব বর্ধমান জেলা চাইল্ড লাইনের হোমে আপাতত রাখা হবে বলে জানান আধিকারিক সুচেতনা ভট্টাচার্য।

    জানা গিয়েছে, ৩ সেপ্টেম্বর বিকালে নার্সিংহোমের পাশে গলিতে পড়ে থাকা এক শিশুকন্যাকে উদ্ধার করে নিজের কাছে রেখেছিলেন কাটোয়া বেসরকারি নার্সিংহোমের আয়া মামনি হাজরা। বাচ্চা কুড়িয়ে পাওয়ার ঘটনার কথা নার্সিংহোমের সহকর্মীদের জানিয়েছিলেন মামনি। অজানা ভয়ে প্রশাসনের কাছে যেতে সাহস পাচ্ছিলেন না। আবার একরত্তি বাচ্চাকে নিজের কাছে রেখে লালন পালন করার মত আর্থিক সামর্থ্য বা শক্তি তাঁর নেই।

    কয়েকদিন এভাবেই শিশুকন্যাকে আগলে রেখেছিলেন মামনি। কিন্তু শনিবার সংবাদ মাধ্যমের সাহায্যে ঘটনার কথা জানতে পেরে জেলা চাইল্ড লাইন আধিকারিক শিশুটিকে চিকিৎসার জন্য কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করেন। কাটোয়া বেসরকারি নার্সিংহোমের মালিক বলেন, 'শিশুকন্যা কুড়িয়ে পাওয়া কথা শুনেই আমি প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করি। আমাদের নার্সিংহোমে ভর্তি থাকা প্রসূতি যদি শিশু বাইরে ফেলে পালিয়ে যায়, তাহলে আমরা কী করব বলুন। তবে সমস্ত নথি আমাদের কাছে আছে। আমরা প্রাশাসনের কাছে তুলে দেব।'

    আরও পড়ুন: প্রচারে 'না' বাবুলের, দিলীপের মন্তব্যে ফের সাংসদের রাজনীতিতে ফেরা নিয়ে তীব্র জল্পনা

    নার্সিংহোম সূত্রে জানা গিয়েছে, যে প্রসূতির শিশু সন্তান বলে অনুমান করা হচ্ছে, তিনি ছিলেন বিধবা। গর্ভাবস্থায় প্রসূতির স্বামীর মৃত্যু হয়। প্রসূতির ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তাঁর পরিবার এই রুগ্ন শিশু ঘরে তুলতে চায়নি। সেজন্য রাস্তায় শিশুটিকে ফেলে দিয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। তবে মানবিক কারণেই প্রসূতির নাম নার্সিংহোমের কর্মীরা বলতে চায়নি। নার্সিংহোমের কর্মী থেকে চাইল্ড লাইন সকলে চাইছেন শিশুটি বেঁচে থাকুক, ভালো থাকুক।

    Published by:Suman Biswas
    First published: