দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শ্বাসনালীতে দুধ আটকে মৃত্যু হল সদ্যোজাত শিশুর !

শ্বাসনালীতে দুধ আটকে মৃত্যু হল সদ্যোজাত শিশুর !

ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনায়। নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে পুলিশে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে মৃত শিশুর পরিবার।

  • Share this:

#বর্ধমান: কোলে শুইয়ে একরত্তি শিশুর গলায় ঢেলে দেওয়া হয়েছিল অনেকটা দুধ। তাতেই শ্বাসরোধ হয়ে মৃত্যু হল পাঁচ দিনের সদ্যোজাতর। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনায়। নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে পুলিশে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে মৃত শিশুর পরিবার। প্রশিক্ষিত নার্সের বদলে আয়াকে দিয়ে শিশু পরিচর্যার কাজ করানো হচ্ছিল। তার জেরেই এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ।

পূর্ব বর্ধমানের কালনার সমুদ্রগড়ের  বাসিন্দা তৃষিতা দত্ত হালদার। গত ৩১  জানুয়ারি কালনার ইভল্যান্ড নার্সিংহোমে এক পুত্র সন্তানের জন্ম দেন।  মঙ্গলবার ওই নার্সিংহোমে শ্বাসরোধ হয়ে মৃত্যু হয় শিশুটির। তারপরই ক্ষোভে ফেটে পড়ে ওই শিশুর পরিবার। নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের গাফিলতির অভিযোগ তুলে কালনা থানায় নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে মৃত শিশুর পরিবার।

মৃত সদ্যোজাতর পরিবারের অভিযোগ, ওই শিশুকে সময় দুধ খাওয়ানো হচ্ছিল।  দুধ খাওয়ানোর সময় পুরোপুরি শুইয়ে রাখা উচিত নয়। শরীরের তুলনায় মুখ ওপরের দিকে থাকার কথা। তাছাড়া একটু একটু করে দুধ দেওয়ার কথা। তা না করে শোওয়া অবস্থায় মুখে বেশি পরিমাণ দুধ ঢেলে দেওয়া হয়। তাতে সদ্যোজাত ওই শিশু সে দুধ গিলতে পারে না৷ উল্টে দুধ শ্বাসনালীতে আটকে যায়। তাতেই দম আটকে মৃত্যু হয় শিশুটির।

তাঁদের অভিযোগ, কম পয়সায় উপযুক্ত ট্রেনিং ছাড়া আয়া রাখার জন্যই এই ঘটনা ঘটলো। টেন্ড নার্স থাকলে হয়তো এই ঘটনা ঘটতো না। শ্বাসনালীতে খাবার আটকালে তা বের করার নিয়ম রয়েছে। প্রশিক্ষিত নার্সরা তা জানেন। কিন্তু এক্ষেত্রে মুনাফা দেখতে গিয়ে আয়াদের দিয়ে নার্সের কাজ করিয়েছে নার্সিংহোম। তারই পরিণতিতে এই ঘটনা ঘটেছে। নার্সিংহোম গাফিলতির দায় এড়াতে পারে না। তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া প্রয়োজন, বলে মৃত শিশুর পরিবারের দাবি।

যদিও বিপাকে পড়ে এ বিষয়ে নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষ মুখে কুলুপ এঁটেছে।  নার্সিংহোমে গিয়েও কর্তৃপক্ষের কারও দেখা মেলেনি। কী কারণে এই ঘটনা ঘটলো তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছে কালনা থানার পুলিশ।

Saradindu Ghosh

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: February 6, 2020, 8:50 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर