খাদ‍্যনালীতে আটকে আড়াই ইঞ্চির সূঁচ, বাঁকুড়া মেডিক‍্যালে ঝুঁকির অস্ত্রোপচার

খাদ‍্যনালীতে আটকে আড়াই ইঞ্চির সূঁচ, বাঁকুড়া মেডিক‍্যালে ঝুঁকির অস্ত্রোপচার
খাদ‍্যনালীতে আটকে সূঁচ

২ ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে গলা থেকে বের করা হয় সূঁচ।

  • Share this:

#বাঁকুড়া: অস্ত্রোপচার করে মহিলার গলা থেকে বেরল আড়াই ইঞ্চির সূঁচ। ২০ জানুয়ারি পান্তা ভাতের সঙ্গে সূঁচ খেয়ে ফেলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের কৃষ্ণপুরের ফরিদা খাতুন। যথেষ্ট ঝুঁকি নিয়ে অপারেশন করেই মহিলার গলা থেকে সূঁচ বের করলেন বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক‍্যাল কলেজের চিকিৎসকরা। পশ্চিম মেদিনীপুরের কৃষ্ণপুর গ্রামের বাসিন্দা ফরিদা খাতুন। ২০ জানুয়ারি পান্তাভাতের সঙ্গে খেয়ে ফেলেন আড়াই ইঞ্চির সূঁচ। বছর পঞ্চাশের মহিলার খাদ‍্যনালীতে আটকে যায় সূঁচটি। তিন দিনের যন্ত্রণার পর তাঁকে রেহাই দিলেন বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক‍্যাল কলেজের চিকিৎসকরা। সোমবার পান্তাভাত খেয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়েন ফরিদা। বিষ্ণুপুর মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করা হয় তাঁকে। এক্স-রেতে ধরা পড়ে খাদ‍্যনালীতে আটকে সূঁচ। মঙ্গলবার তাঁকে রেফার করা হয় বাঁকুড়া মেডিক‍্যালে।

খাদ‍্যনালীতে বিপজ্জনকভাবে আটকে ছিল আড়াই ইঞ্চির সূঁচ। কার্ডিও থোরাসিক সার্জেন ছাড়াই ঝুঁকি নিয়ে বৃহস্পতিবার অস্ত্রোপচার করেন বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক‍্যালের ৩ চিকিৎসক। ২ ঘণ্টার অস্ত্রোপচারে গলা থেকে বের করা হয় সূঁচ। আপাতত বিপন্মুক্ত ফরিদা খাতুন।

First published: January 26, 2020, 2:30 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर