'আজকে তিনি তেরঙ্গাতে কাল ভক্ত রামে', নচিকেতার গানের কামড়, কথায় তীব্র বিতর্ক...

'আজকে তিনি তেরঙ্গাতে কাল ভক্ত রামে', নচিকেতার গানের কামড়, কথায় তীব্র বিতর্ক...
অনুষ্ঠান মঞ্চে নচিকেতা। নিজস্ব চিত্র।

রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে বিরোধী পক্ষ বিজেপির চাপানউতোর শুরু হয়েছে নচিকেতার গানের কলি নিয়েই।

  • Share this:

#বর্ধমান: সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ। অরাজনৈতিক সেই মঞ্চ থেকেই রাজনৈতিক নেতাদের একাংশের বিরুদ্ধে খারাপ মন্তব্যের অভিযোগ। সঙ্গীত শিল্পী নচিকেতার সেই বক্তব্যকে ঘিরে জোর বিতর্ক শুরু হয়েছে। বর্ধমানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে দলত্যাগী রাজনৈতিক নেতাদের উদ্দেশ্যে নচিকেতা কটূ কথা বলেছেন বলে অভিযোগ। আর এই  ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিতর্কের ঝড়।  রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে বিরোধী পক্ষ বিজেপির চাপানউতোর শুরু হয়েছে নচিকেতার গানের কলি নিয়েই।

বর্ধমানে চলছে পৌর উৎসব। ২৩ জানুয়ারি থেকে বর্ধমান উৎসব ময়দানে শুরু হওয়া সেই উৎসবে প্রতিদিনই চলছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। তেমনই ২৯ জানুয়ারি বর্ধমানের উৎসব ময়দানে বর্ধমান পৌর উৎসব কমিটি পরিচালিত বর্ধমান পৌর উৎসবের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছিলেন সঙ্গীত শিল্পী নচিকেতা। জনপ্রিয় আধুনিক গান গাওয়ার সময় তিনি দলত্যাগী রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে কটুক্তি করেন বলে অভিযোগ।

বর্তমান সময়ে যে ভাবে রাজনৈতিক নেতারা দল বদল করছেন তা সাম্প্রতিক অতীতে তেমন দেখা যায়নি। ঠিক সেই পরিস্থিতিতে সঙ্গীত পরিবেশনে নচিকেতার এই মন্তব্য যথেষ্ট তাৎপর্য পূর্ণ বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা।


এদিকে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক চাপানউতর। বিজেপির অভিযোগ, বর্ধমানের এই উৎসব তৃণমূলের উৎসবে পরিনত হয়েছে।সেই মঞ্চ থেকে তৃণমূল কংগ্রেসের বিরোধীদের গালিগালাজ দেওয়া হবে এটাই তো স্বাভাবিক। তাই সেই উৎসব থেকে এই নির্বাচনের মুখে শিল্পীদের দিয়ে উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে গালিগালাজ দেওয়ানো হচ্ছে। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি এই উৎসব পৌর উৎসব কমিটি পরিচালনা করে। তাছাড়া বর্তমানে পৌরসভায় প্রশাসক রয়েছে। তাই এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও যোগ নেই। বরং বিজেপি ও তৃণমূল কংগ্রেসের সমালোচনা করছে।শহরে সংস্কৃতিমনস্ক ব্যক্তির অবশ্য বলছেন বর্ধমান উৎসব কে রাজনৈতিক রঙের ঊর্ধ্বে রাখা উচিত। একাংশের বাসিন্দারা আঘাত পাক এমন কোনও কিছু হওয়া উচিত নয়। কারণ এই উৎসব বর্ধমানবাসীর সকলের। তাই আগামী দিনে এ ব্যাপারে আয়োজকদের সতর্ক থাকতে হবে।

Published by:Arka Deb
First published: