বাউল-নসামঙ্গল-ফকিরদের মিলন, সিউড়ির গ্রামে 'লবান' উত্‍সব

বাউল-নসামঙ্গল-ফকিরদের মিলন, সিউড়ির গ্রামে 'লবান' উত্‍সব
চলছে বাউলের আখড়া

সেই লবানকে কেন্দ্র করেই বাউল ফকিরদের মিলনস্থল তৈরি হয়েছে সিউড়ির কড়িধ্যা গ্রামে। প্রত্যেক বছরই এই উৎসবের আয়োজন করা হয়৷

  • Share this:

Supratim Das

#সিউড়ি: বীরভূমের ভাষায় লবান উৎসব। এই উৎসবকে কেন্দ্র করে সর্বধর্মের শিল্পীদের মিলনস্থল তৈরি হয়েছে সিউড়ির কড়িধ্যা গ্রামে। এই উৎসব একটু অন্যরকম। নতুন চালের ভাত খাওয়াকে যেমন বলা হয় নবান্ন উৎসব, যা বীরভূমের ভাষায় লবান।

চলছে বাউলের আখড়া চলছে বাউলের আখড়া

সেই লবানকে কেন্দ্র করেই বাউল ফকিরদের মিলনস্থল তৈরি হয়েছে সিউড়ির কড়িধ্যা গ্রামে। প্রত্যেক বছরই এই উৎসবের আয়োজন করা হয়৷ বীরভূম তো বটেই বীরভূমের বাইরে থেকেও বিভিন্ন বাউল, ফকির, কাওয়ালিয়া, মনসামঙ্গল শিল্পীরা আসেন এই উৎসবে যোগ দিতে। তালগাছের পাতা দিয়ে তৈরি ছাদ, আর তার নীচেই বাউল ফকিরের সুর আলাপ৷ যে যার নিজের গান শোনাতে ব্যস্ত অপর শিল্পীদের৷ আর তাতেই সুরে সুরময় ওই এলাকা। শনিবার থেকে শুরু হাওয়া এই অনুষ্ঠান চলবে সোমবার সকাল পর্যন্ত৷

লবান উত্‍সবে বাউল গান লবান উত্‍সবে বাউল গান এই উৎসবের উদ্যোক্তা সিউড়ির এক বাউল নিতাই চন্দ্র দাস। এখানে কেউ গাইছেন মনসামঙ্গলের গান, আর সেই গান শেষ হলেই শুরু হচ্ছে বাউল গান, সঙ্গে আছে কাওয়ালি, কবির গান ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের গান৷ আর এই গান শোনার জন্য শহরের লোকেরা অপেক্ষা করে থাকেন। গান শুনেই সময় কাটান দর্শকরা।
First published: December 22, 2019, 1:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर