• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • ‘তোমাদের কী অবস্থা! সকালে উঠে একটু দৌড়ও...’, লকআপে বসে পুলিশকে পরামর্শ পালিয়ে যাওয়া আসামী কর্ণর

‘তোমাদের কী অবস্থা! সকালে উঠে একটু দৌড়ও...’, লকআপে বসে পুলিশকে পরামর্শ পালিয়ে যাওয়া আসামী কর্ণর

  • Share this:

    #কাঁথি: সকাল সন্ধেয় চা বিস্কুট। পেট পুরে লাঞ্চ-ডিনার। রাতে টেনে ঘুম। থানার লক আপে কুল কর্ণ। দেখে কে বলবে, খুনে অভিযুক্ত এই যুবকই বৃহস্পতিবার কাঁথি কোর্টে কুরুক্ষেত্র বাঁধিয়েছিল। থানার মধ‍্যে পুলিশকে খোঁচা দিতেও ছাড়েনি। কটাক্ষের সুরে বলে, তোমাদের কী অবস্থা! সকালে উঠে একটু দৌড়ও! সঙ্গে ফের পালানোর হুমকি।

    বোমা-গুলি ছুড়ে পালানোর চেষ্টা করেছিল খুনে অভিযুক্ত কর্ণ বেরা। কিন্তু শেষমেশ ধরা পড়ে যায়।

    আরও পড়ুন: ১৯ এ চাই বিয়াল্লিশে বিয়াল্লিশে, বিজেপিকে ১টি আসনও নয়, কোর কমিটির বৈঠকে বার্তা তৃণমূলনেত্রীর

    কিন্তু, ধরা পড়লে হবে কী! বৃহস্পতিবার, কাঁথি থানার লক আপেও পুলিশকে অতিষ্ঠ করে ছাড়ে কর্ণ। সন্ধে হতেই আব্দার ৷ সেই মতো আসে চা ৷ রাতেও জমিয়ে খাওয়া দাওয়া। ডাল-ভাত-সব্জি ৷ পেট ভরে খেয়ে টেনে ঘুম দেয় খুনে অভিযুক্ত কর্ণ ৷

    থানার লক আপে খাওয়া-দাওয়া-ঘুম। আর মাঝে মধ‍্যেই পুলিশকে খোঁচা। ঠোটের কোণ হালকা হাঁসি। হাসতে হাসতেই কটাক্ষের সুরে কর্ণ বলে তোমরা কি করলে! তোমাদের নিয়ে তো আমি যা খুশি করেছি। বাইক না বিগড়ে গেলে আবার পালাতাম। ধরতে পারতে না। কী করলে। বাইরে তো লোকজন তোমাদের নামে ভালই বলছে। আমার এই চেহারা। আমাকে নিয়ে হিমশিম খাচ্ছ! তোমাদের কী অবস্থা! সকালে উঠে একটু দৌড়ও।

    আরও পড়ুন: ২৮ হাজার ক্লাবকে পুজোর অনুদানে অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ হাইকোর্টের কখনও এরকম কটাক্ষ, কখনও আবার সরাসরি পুলিশকে হুমকি। কর্ণের হুঁশিয়ারি, লঙ্কা গুঁড়ো চোখে ছিটিয়ে পালিয়েছি। কোর্ট থেকে পালিয়েছি। আবার পালাব। আমাকে আটকে রেখে কী লাভ। আমাকে ছেড়ে দাও। আমি বেড়াতে যাব। শুক্রবার সকালে ঘুম থেকে উঠে কর্ণের ফের চায়ে চুমুক। তারপর ছোলা-মুড়ি দিয়ে ব্রেকফাস্ট ৷

    আরও পড়ুন: পুজোর আগে ভাসতে চলেছে গোটা রাজ্য

    বেলা গড়াতেই আবার ভাত-ডাল-সবজি ৷ শুক্রবার, কাঁথি থানা থেকে কর্ণ বেরাকে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে। সেখান থেকে কাঁথি আদালত। মাঝপথে কাঁথি স্কুল মোড় বাজারে যানজটে আটকে পড়ে প্রিজন ভ‍্যান। এতে রক্তচাপ বেড়ে যায় পুলিশের। তখনও পুলিশের দিকে কর্ণের তির। খোঁচা দিয়ে বলে, চিন্তা হচ্ছে? আরে এভাবে পালানো যায় না কি? পালাতে হলে আগে থেকে ছক কষতে হয়।

    পাখি আবার ফুড়ুৎ হয়ে যাবে না তো? ঘোর চিন্তায় পুলিশ।

    First published: