শেষ রক্ষা হলো না! মঙ্গলকোটে সিসিটিভি ধরিয়ে দিল মোটরবাইক চোরকে

শেষ রক্ষা হলো না! মঙ্গলকোটে সিসিটিভি ধরিয়ে দিল মোটরবাইক চোরকে

পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানার পুলিশ রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে মোটর সাইকেল চুরির কয়েক ঘন্টার মধ্যেই দুষ্কৃতী গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হল।

পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানার পুলিশ রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে মোটর সাইকেল চুরির কয়েক ঘন্টার মধ্যেই দুষ্কৃতী গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হল।

  • Share this:

বাইক চুরি করতে বিশেষ বেগ পেতে হয়নি। নিঃশব্দেই কাজ সেরে ফেলেছিল দুষ্কৃতী। চুরি করা মোটরসাইকেল নিয়ে এলাকার বাইরে চলে গিয়েছিল। এসবের পর স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলার মাঝেই তাকে হাতেনাতে গ্রেফতার করল পুলিশ। আপাতত সেই দুষ্কৃতীর ঠিকানা হয়েছে শ্রীঘরে। সৌজন্যে রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ।

পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোট থানার পুলিশ রাস্তার সিসিটিভি ফুটেজ দেখে মোটর সাইকেল চুরির কয়েক ঘন্টার মধ্যেই দুষ্কৃতী গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হল। সোমবার পূর্ব বর্ধমান জেলার মঙ্গলকোটের পালিশ গ্রামে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের সামনে থেকে একটি দামী মোটর সাইকেল চুরি হয়। মোটর সাইকেলের মালিক রবিউল হক ব্যাঙ্কের বাইরে মোটর সাইকেল রেখে প্রয়োজনীয় কাজ মেটাতে ব্যাঙ্কে ঢুকে ছিলেন। কিছুক্ষণ পর কাজ শেষ করে বাইরে এসে দেখেন সেখানে মোটর সাইকেল নেই। সেই মোটর সাইকেল চুরি হয়েছে বুঝেই মঙ্গলকোট থানার পুলিশকে বিষয়টি জানান রবিউল।

ব্যাঙ্কের সামনে সুযোগের অপেক্ষায় ছিল মঙ্গলকোট থানার ঝিলু গ্রামের বাসিন্দা সাদ্দাম সেখ। রবিউল ব্যাঙ্কে ঢুকতেই সাদ্দাম এদিক সেদিক দেখে নিয়ে রবিউলের মোটর সাইকেল নিয়ে চম্পট দেয়। রবিউলের কাছ থেকে মোটর সাইকেল চুরির খবর পাওয়ার পরেই নড়েচড়ে বসে মঙ্গলকোট থানার পুলিশ। এলাকায় তল্লাশি চালানোর পাশাপাশি সি সি টিভি ফুটেজে চোখ রাখা হয়। নতুন হাটের লোচন দাস সেতু থেকে শুরু করে বাদশাহি রোডের সব সি সি টিভি ফুটেজ দেখা হয়। তাতেই দেখা যায় চুরি করা মোটর সাইকেল নিয়ে ফুরফুরে মেজাজে যাচ্ছে দুষ্কৃতী। রবিউলের দেওয়া বিবরণ নম্বরের সঙ্গে মিলে যায় সিসিটিভির মোটর সাইকেল। এরপর আর সাদ্দামের হদিশ পেতে পুলিশকে বেশি বেগ পেতে হয়নি।

জেলা পুলিশের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, সি সি টিভির ফুটেজ মাঝেমধ্যেই পুলিশের কাছে মুশকিল-আসান হয়ে উঠছে। মোটর সাইকেল চুরির পর লোচন দাস সেতুতে আসতে যে সময় লাগার কথা তার কাছাকাছি সময়ের মধ্যেই অভিযুক্তকে ওই এলাকা পার হতে দেখা গেছে। শুধু তাই নয়, দূরত্ব অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময় অন্তর বাকি সি সি টিভি ফুটেজেও তার ছবি মিলেছে। এরপর এলাকায় খোঁজ নিয়ে দুষ্কৃতীর বাড়ি চিহ্নিত করা হয়।

SARADINDU GHOSH

Published by:Arindam Gupta
First published: