প্রসবের সময় মা ও সদ্যজাতর মৃত্যু, রণক্ষেত্র বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল

প্রসবের সময় মা ও সদ্যজাতর মৃত্যু, রণক্ষেত্র বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল
file photo

ভুল চিকিৎসাতেই ওই দুজনের মৃত্যু হয়েছে দাবি করে হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টারের অফিসে হামলা চালায় মৃতার পরিবারের লোকজন

  • Share this:

#বাঁকুড়া: প্রসবের সময় সদ্যজাত ও প্রসুতির মৃত্যুকে ঘিরে আজ, সোমবার ধুন্ধুমার ঘটনা ঘটল বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে। ভুল চিকিৎসাতেই ওই দুজনের মৃত্যু হয়েছে দাবি করে হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টারের অফিসে হামলা চালায় মৃতার পরিবারের লোকজন। ওয়ার্ড মাস্টারের অফিসে হালকা ভাংচুরও চালানো হয় বলে অভিযোগ। মৃতার পরিবারের তরফে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ পেয়ে ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

হাসপাতাল সুত্রে জানা গিয়েছে, গতকাল সকালে প্রসব যন্ত্রনা নিয়ে বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন পাত্রসায়ের ব্লকের পায়রাশোল গ্রামের ২৬ বছরের গৃহবধু বুলটি বারিক। অভিযোগ গতকাল সকালে ভর্তি করা হলেও চিকিৎসকরা তাঁকে দেখেন রাতে। গতকাল রাতে বুলটি বারিক যখন প্রসব যন্ত্রনায় ছটফট করছিলেন সেই সময় নার্স ও চিকিৎসা কর্মীরা বুলটির পেটে বারবার প্রচন্ড জোরে চাপ দেয় বলে অভিযোগ। রাতভর প্রসব যন্ত্রনা ভোগ করার পর আজ সকালে একটি কন্যাসন্তানের জন্ম দেন বুলটি দেবী। অভিযোগ জন্মের কয়েক ঘন্টা যেতে না যেতেই সদ্যজাতর মৃত্যু হয়। সদ্যজাতর মৃত্যুর ঘন্টা খানেক পরেই দুপুরে মারা যান প্রসূতি বুলটি বারিক।

এরপরই মৃতার পরিবারের ক্ষোভ আছড়ে পড়ে হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টারের অফিসে। বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি ওয়ার্ড মাস্টারের অফিসে হালকা ভাংচুর করা হয় বলে অভিযোগ। মৃতার পরিবারের দাবি গতকাল রাতে প্রসুতির উপর চিকিৎসা কর্মীদের অত্যাচার ও চিকিৎসকের অবহেলা ও ভুল চিকিৎসার কারনেই সদ্যজাত ও প্রসুতির মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার পুর্নাঙ্গ তদন্ত করে দোষিদের শাস্তির দাবিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন মৃতার পরিবার। মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে ঘটনার তদন্তের আস্বাস দিয়েছেন সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

First published: 11:02:04 PM Sep 16, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर