Hilsha: পূবালি বাতাস, ঝিরঝিরে বৃষ্টি! খরা কাটিয়ে জালে উঠল ৮ হাজার কেজি ইলিশ

মাছে স্বাদও হবে দারুণ, দাবি মৎস্যজীবীদের৷

বর্ষার গোলগাল ইলিশ হওয়ায় এই মাছের স্বাদও ভাল হবে বলে মত মৎস্যজীবীদের। ইতিমধ্যে সেই ইলিশ নামখানা, কাকদ্বীপ, ফ্রেজারগঞ্জ ঘাটে পৌঁছতে শুরু করেছে (Hilsha)।

  • Share this:

    #নামখানা: খরা কাটিয়ে অবশেষে মৎস্যজীবীদের জালে উঠল প্রচুর সংখ্যক ইলিশ৷ গত ১৫ জুন থেকে গভীর সমুদ্রে ইলিশ ধরা শুরু হয়। কিন্তু খালি হাতেই ফিরতে হচ্ছিল মৎস্যজীবীদের। অবশেষে পূবালি বাতাস ও ঝিরঝিরে বৃষ্টির সৌজন্যে ইলিশ পাওয়া অনুকূল আবহাওয়া তৈরি হয়েছে৷ আর তার ফলেই গত কয়েকদিনে দক্ষিণ ২৪ পরগনার সুন্দরবনের মৎস্যজীবীদের জালে ধরা পড়েছে প্রায় ৮ হাজার কেজি রুপোলি শস্য।

    বর্ষার গোলগাল ইলিশ হওয়ায় এই মাছের স্বাদও ভাল হবে বলে মত মৎস্যজীবীদের। ইতিমধ্যে সেই ইলিশ নামখানা, কাকদ্বীপ, ফ্রেজারগঞ্জ ঘাটে পৌঁছতে শুরু করেছে।  ডায়মন্ড হারবার নগেন্দ্রবাজার মৎস্য আড়তে নিলামের পর ইলিশ পৌঁছে যাবে রাজ্যের বাজারে। ইলিশের ওজন পাঁচশ গ্রাম থেকে এক কেজি। তবে মরসুমের প্রথম ইলিশ হওয়ায় দাম একটু চড়া।

    জানা গিয়েছে, ডায়মন্ড হারবারের নগেন্দ্র বাজারে পাইকারি দরে পাঁচশো গ্রামের ইলিশ বিক্রি হয়েছে ৭০০ থেকে ১৩০০ টাকা দরে৷ ৮০০ গ্রাম ইলিশের দাম উঠেছে ১০০০ টাকা৷ আর ১ কেজি সাইজের ইলিশের দাম ওঠে ১৩০০ টাকা৷

    গত কয়েক দিনে কাকদ্বীপ, নামখানা, ফ্রেজারগঞ্জ, পাথরপ্রতিমা, সাগর থেকে দেড় হাজারের বেশি ট্রলার সমুদ্রে পাড়ি দিয়েছিল। এর মধ্যে পনেরোটির বেশী ট্রলার গড়ে ৫০০ থেকে ৬০০ কেজি করে ইলিশ ধরেছে বলে মৎস্যজীবী ইউনিয়ন সূত্রে জানা গেছে।

    ভাল পরিমাণে ইলিশ ধরা পড়ায় নামখানা ঘাটেও মৎস্যজীবীদের মধ্যে এখন প্রবল ব্যস্ততা।

    ট্রলারের এক মৎস্যজীবী লিটন দাস বলেন, এ বছর শুরু থেকে প্রচুর লোকসান হয়েছে। এই ট্রিপে কিছুটা ইলিশ ধরা পড়েছে। তবে সব ট্রলার পায়নি। আবহাওয়া ভাল থাকায় আরও মাছ উঠবে বলে আশা করা যাচ্ছে। নামখানা থেকে মাছ বোঝাই বিভিন্ন মিনি ট্রাক চলে আসছে ডায়মন্ড হারবার মাছের আড়তে। আড়তেও হাজির হয়েছেন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের ইলিশ বিক্রেতারা। এখান থেকে পাইকারি দরে কিনে নিয়ে নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন বাজারে মাছ বিক্রি করবেন।

    গড়িয়া বাজারের ইলিশ বিক্রেতা কপিল বিশ্বাস জানালেন, আমরা এতদিন দিঘা, ওড়িশার ইলিশ বিক্রি করছিলাম। কিন্তু স্বাদ ভাল হচ্ছিল না। কাকদ্বীপ, নামখানা, ডায়মন্ড হারবারের ইলিশের স্বাদ আলাদা। এখানকার কাঁচা ইলিশ ক্রেতারা পছন্দ করেন। আড়তে ভালই মাছ এসেছে। তবে দাম একটু চড়া। কাকদ্বীপ মৎস্যজীবী ইউনিয়নের সম্পাদক বিজন মাইতি জানিয়েছেন, ইলিশ ধরা পড়ায় আরও বেশি সংখ্যক ট্রলার মাছ ধরতে গভীর সমুদ্রে যাচ্ছে৷

    Biswajit Halder
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: