corona virus btn
corona virus btn
Loading

সুন্দরবনে বিলুপ্ত হতে চলেছে প্রায় ১০ টি প্রজাতির মাছ

সুন্দরবনে বিলুপ্ত হতে চলেছে প্রায় ১০ টি প্রজাতির মাছ

সুন্দরবনের বাস্তুতন্ত্র বিপন্ন

  • Share this:

Shalini Datta

#সুন্দরবন: সুন্দরবনের বাস্তুতন্ত্র বিপন্ন। প্রধানত, সুন্দরবনের জলীয় বাস্তুসংস্থানে বড় রকমের পরিবর্তন দেখা দিচ্ছে। বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন জুলজিস্ট সুন্দরবন ও তার আশপাশের অঞ্চলে গত ৩৬ মাস ধরে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছিলেন। তাদের পরীক্ষার তথ্য অনুযায়ী সুন্দরবনের বেশকিছু মৎস্য প্রজাতি বিলুপ্ত হতে চলেছে। সুন্দরবন যা কীনা বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ অরণ্য, সেখানে জলবায়ুর পরিবর্তন যথেষ্ট বিরূপ প্রভাব ফেলেছে। তার সঙ্গে আছে ভ্রমণপিপাসুদের করা কৃত্রিম দূষণ।

সুন্দরবনে ভারতের পূর্বাঞ্চলের ৯০ শতাংশ জলজ প্রাণীর জন্মকেন্দ্র। এখানে ১৪৪ প্রজাতির মাছ ২০টি আলাদা প্রজাতির চিংড়ি এবং ৪৪টি বিভিন্ন প্রজাতির কাঁকড়া পাওয়া যায়। সুন্দরবন কলকাতার ১৫ থেকে ২০ শতাংশ মাছের চাহিদা মেটায়। ম্যানগ্রোভ অরণ্যের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জুড়ে রয়েছে জলভূমি। এই বিস্তীর্ণ জলাভূমির অনেক অংশ মানুষের প্রয়োজনে ধীরে ধীরে কমতে থাকায় তার প্রভাব সুন্দরবনের জলীয় জীবনের ওপর পড়েছে।

বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জ্ঞানেন্দ্র নারায়ণ সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, 'সব থেকে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে ২০০৯-এ ঘূর্ণিঝড় আয়লার পর। আয়লার কারণে সমুদ্রের নোনা জল সুন্দরবন অঞ্চলে ঢুকে পড়ে। তার প্রভাবে সুন্দরবনের বাস্তু তন্ত্র যা কীনা প্রধানত নদীর মিষ্টি জলের ওপর তৈরি তার ওপর মারাত্মক প্রভাব ফেলে। আয়লার ১ সপ্তাহ আগে কয়েকজন জুলজিস্ট সুন্দরবন অঞ্চল থেকে বেশকিছু তথ্য সংগ্রহ করেছিলেন। আয়লার ৯ বছর পর অন্য বিজ্ঞানীদের তথ্যের সঙ্গে মিলিয়ে দেখা গিয়েছে, সুন্দরবন এখনও আয়লার প্রভাব কাটিয়ে উঠতে পারেনি। মিষ্টি জলে বাস করা নানান প্রজাতির মাছ সমুদ্রের নোনা জলে মানিয়ে নিতে পারছে না। তার সঙ্গে যোগ হয়েছে জীবন নির্ধারণের জন্য মাছ-ধরার প্রভাব। সরকারের তরফ থেকে বারবার ঘোষণা করার পরও বেআইনি মাছ শিকারের ফলে অনেক মাছের প্রজাতি বিলুপ্ত হতে চলেছে।'

সম্প্রতিকালে গবেষকদের একটি দল সরকারের কাছে অনুরোধ করেছেন নতুন কিছু নিয়মাবলী সুন্দরবন অঞ্চলে চালু করার জন্য।

এরমধ্যে রয়েছে--

মাছ শিকারের জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ণয় করে দেওয়া হয় প্রজনন ঋতুতে মাছ শিকার বন্ধ থাকে ভ্রমণকারীদের জন্য নির্দিষ্ট নিয়ম চালু করা যাতে সুন্দরবন অঞ্চলের দূষণের পরিমাণ কমে সুন্দরবন অঞ্চলের প্রধান নদীগুলিকে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা যাতে তার ওপর ভিত্তি করে সুন্দরবনের বাস্তু তন্ত্র স্বাভাবিক হয়ে উঠতে পারে।

Published by: Rukmini Mazumder
First published: January 2, 2020, 1:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर