দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা শুভেন্দু অধিকারীর, পদে না থেকেও উন্নয়নের বার্তা

হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা শুভেন্দু অধিকারীর, পদে না থেকেও উন্নয়নের বার্তা
ফাইল ছবি

২০১১ সাল থেকে হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। ২০২০ সালের আজকের দিন পর্যন্ত তিনি সেই পদে বহাল ছিলেন।

  • Share this:

#হলদিয়া: দু-দিন আগে HRBC-র চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন। ২৪ ঘণ্টা পেরনোর আগেই রাজ্যের দেওয়া 'Z' ক্যাটাগরির নিরাপত্তা সরিয়ে নেওয়ার আবেদন জানিয়েছিলেন। আর শুক্রবার সকালে ইস্তফা দিলেন নিজের মন্ত্রিত্ব পদ থেকেই। যা নিয়ে সকাল থেকে রাজ্য রাজনীতি সরগরম। শুভেন্দু অধিকারী এ দিন ইস্তফা দিয়েছেন হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকেও। অর্থাৎ একে একে প্রশাসনিক সব পদ থেকেই সরে দাঁড়ালেন তিনি।

২০১১ সাল থেকে হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পদে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। ২০২০ সালের আজকের দিন পর্যন্ত তিনি সেই পদে বহাল ছিলেন। তবে দলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হওয়ার পরে তিনি জানতে পারেন, দফতরের কর্মীদের তাঁর সঙ্গে অসহযোগিতার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দলের ওপরের মহল থেকে। সূত্রের খবর, পদে না থেকেও তিনি উন্নয়নের কাজ করবেন এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন। আর সেই কাজটাই তিনি এবারে করে দেখালেন। সূত্রের খবর, শুভেন্দু পর্ষদের চেয়ারম্যান হওয়ায় পরে হলদিয়ায় প্রভূত উন্নতি হয়েছিল। ফলে এ দিন তিনি দল ছাড়ার পরে অনেকেই ক্ষুব্ধ হন। এমনকি এতে উন্নয়ন যথেষ্ট বাধা পাবে বলে মতো ওয়াকিবহাল মহলের।

২৪ জুলাইয়ের পর থেকেই পোড় খাওয়া এই রাজনীতিবিদের রাজনৈতিক অবস্থান এবং কর্মকাণ্ড নিয়ে জল্পনা চলছিল। রাজনৈতিক  যাবতীয় জল্পনায় ইতি টেনে এ দিন সকালেই কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে নিজের পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে দেন শুভেন্দু৷ যেহেতু স্যানিটাইজেশনের জন্য এ দিন নবান্ন বন্ধ ছিল, তাই মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে পদত্যাগপত্র পাঠিয়েছেন শুভেন্দু৷ রাজ্য পরিবহণ, সেচ এবং জলসম্পদ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন শুভেন্দু৷ পাশাপাশি সেই একই চিঠি পদত্যাগ পত্র ই-মেলের মাধ্যমে রাজ্যপালের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন শুভেন্দু৷

নিজের পদত্যাগপত্রে শুভেন্দু লিখেছেন, দীর্ঘদিন ধরে রাজ্যের এই দু'টি দফতরে মন্ত্রী হিসেবে কাজ করতে পেরে এবং মানুষের সেবা করতে পেরে তিনি খুশি৷ মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার আগে নিজের সরকারি নিরাপত্তা ছেড়ে দেওয়ার জন্যও শুভেন্দু চিঠি দেন বলে জানা গিয়েছে৷

তবে রাজ্যের মন্ত্রী হিসেবে পদত্যাগ করলেও এখনই তিনি বিধায়ক পদ ছাড়ছেন না বলে খবর৷ পাশাপাশি তৃণমূলের সঙ্গে দলীয় স্তরেও তিনি সব সম্পর্ক সরকারি ভাবে ছাড়লেন কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়৷ তবে তৃণমূলের সঙ্গে শুভেন্দুর বিচ্ছেদ এখন সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করা হচ্ছে৷ তৃণমূলের তরফে শুভেন্দুর সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছিলেন৷ তিনি বলেছেন, 'শুভেন্দুর সঙ্গে আবারও কথা বলব৷'

Published by: Shubhagata Dey
First published: November 27, 2020, 5:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर