বাড়ি ফিরছেন শ্রমিকরা, বীরভূমেও করোনা আক্রান্তরা অধিকাংশই পরিযায়ী শ্রমিক

বর্তমানে অরেঞ্জ জোন বীরভূম কতদিন কমলা রঙের আওতায় থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন বিভিন্ন মানুষের মনে।

বর্তমানে অরেঞ্জ জোন বীরভূম কতদিন কমলা রঙের আওতায় থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন বিভিন্ন মানুষের মনে।

  • Share this:

Supratim Das

#বীরভূম: বীরভূমে দিন দিন বেড়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তবে যাঁদের দেহে করোনা ভাইরাসের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে তাঁরা প্রত্যেকেই পরিযায়ী শ্রমিক। বীরভূমে প্রথম যে রোগীর দেহে করোনা ভাইরাস পাওয়া গিয়েছিল সেই রোগীও এসেছিলেন বাইরে থেকে। অর্থাৎ বাইরে থেকে সংক্রমণ নিয়ে বীরভূমে এসেই লালারস সংগ্রহের মাধ্যমে ধরা পড়ছেন আক্রান্ত রোগীরা। বিভিন্ন রাজ্য থেকে পরিযায়ী  শ্রমিকরা বীরভূমে ফিরতে শুরু করেছেন। তাঁদেরকে প্রথমেই কোনও সরকারি শিবিরে রাখছে বীরভূম জেলা প্রশাসন। সেখানেই তাঁদের লালারস সংগ্রহ করা হচ্ছে।

তারই মধ্যে বিভিন্ন বাসে করে তাঁদেরকে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে । বলে দেওয়া হচ্ছে বাড়ি থেকে না বেরোতে। ঐ সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকের রিপোর্ট চলে আসছে বীরভূম জেলা প্রশাসনের হাতে, যাঁদের শরীরে করোনা ভাইরাস রয়েছে তাঁদেরকে বাড়ি থেকে নিয়ে ফের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে । তবে করোনা আক্রান্তের ক্ষেত্রে সুস্থও হচ্ছে বীরভূমে। ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।  তবে সংক্রমণের ক্ষেত্রে পরিযায়ী শ্রমিকদের থেকে বীরভূমে একমাত্র একজন স্বাস্থ্যকর্মী সংক্রমিত হয়েছিলেন । তিনিও বর্তমানে সুস্থ।

এই পরিযায়ী শ্রমিকদের থেকে যাতে আর কেউ সংক্রামিত না হন, সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রেখেছে বীরভূম জেলা প্রশাসন । নেওয়া হয়েছে বেশ কিছু পদক্ষেপও।  তবে বীরভূম জেলা প্রশাসনের মাথাব্যথা যে সমস্ত পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়িতে থাকতে বলা হচ্ছে তাঁরা কতটা নিয়ম-কানুন মানছেন । এই প্রশ্নটাই বারবার ঘুরে ফিরে আসছে। আবার বর্তমানে অরেঞ্জ জোন বীরভূম কতদিন কমলা রঙের আওতায় থাকবে তা নিয়েও প্রশ্ন বিভিন্ন মানুষের মনে।

Published by:Simli Raha
First published: