• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • MATUA FAMILY SHANTANU THAKUR ASKS FOR AMIT SHAH TO COME TO THAKURNAGAR AND CALL FOR CAA PBD

ঠাকুরনগরে আসুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বার্তা দিন CAA প্রয়োগ নিয়ে, দাবি শান্তনু ঠাকুরের

সম্প্রতি নাগরিক আইন লাগু না হওয়া নিয়ে শান্তনু ঠাকুর ক্ষোভ জানিয়েছেন।

সম্প্রতি নাগরিক আইন লাগু না হওয়া নিয়ে শান্তনু ঠাকুর ক্ষোভ জানিয়েছেন।

  • Share this:

#গোপালনগর: বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের মানভঞ্জনে মতুয়া গড়ে হাজির হলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। সম্প্রতি নাগরিক আইন লাগু না হওয়া নিয়ে শান্তনু ঠাকুর ক্ষোভ জানিয়েছেন। গত বুধবার মুখ্যমন্ত্রী গোপালনগরে এসে নাগরিকত্ব আইন লাগু হচ্ছে না বলে ঘোষণা করেছিলেন। মতুয়াদের  ঢালাও আশ্বাসও দিয়েছেন তিনি।

সেই পরিস্থিতিতে শনিবার  ঠাকুরনগর মতুয়া বাড়িতে এসে বনগাঁর বিজেপি সাংসদ শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। বেঠক শেষে কৈলাস  বলেন " মতুয়া সমাজ বিজেপির সঙ্গেই রয়েছেন৷  নাগরিক আইন কবে প্রয়োগ হবে, নিয়মকানুন কী হবে তা নিয়ে দুজনের মধ্যে আলোচনা হয়েছে ।" যদিও শান্তনু  বলেন" আমরা চাই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসে এই আইন কবে চালু হবে সে বিষয়ে ঘোষণা করুন৷"

শনিবার বেলা ১ টা নাগাদ ঠাকুর বাড়িতে আসেন কৈলাস। হরিচাঁদ গুরুচাঁদ ঠাকুরের মূর্তিতে প্রণাম করে শান্তনু ঠাকুরের সঙ্গে প্রায় ঘণ্টা খানেক বৈঠক করেন। দুপুরের খাওয়া ঠাকুরবাড়িতেই সারেন তিনি। সিএএ কবে প্রয়োগ হবে সে প্রশ্নে কৈলাস বলেন "কেন্দ্রীয় সরকার রূপরেখা তৈরি করছেন। আগামী জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি মাস নাগাদ হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নাগরিকত্ব দেওয়ার বিষয়ে স্বয়ং দায়িত্ব নিয়েছেন। এ বিষয়ে সংসদে বিল পাশ হয়ে গেছে। প্রয়োগ হওয়াটা সময়ের অপেক্ষা৷ নির্বাচনের সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই। নাগরিকত্ব দেওয়া আমাদের প্রাথমিক কর্তব্য।"

সম্প্রতি বিজেপির সভা সমিতিতে কেন দেখা যাচ্ছেনা শান্তনু কে? শান্তনু বলেন , "মতুয়াদের দাবি আদায়ের জন্যই আমার রাজনীতিতে আসা ও ভোটে দাঁড়ানো। আমার কাছে সর্বাধিক গুরুত্ব মতুয়াদের দাবি আদায় করাটা। এ কথা আগেও বলেছি এখনও বলছি।যতক্ষণ না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসে সিএএ প্রয়োগের কথা ঘোষণা করছেন, ততক্ষণ আমাদের আন্দোলন চলবে। কৈলাস জি কে অনুরোধ করেছি যাতে জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এখানে আসেন৷"

গোপালনগরে সভায় মমতা ঘোষণা করেছিলেন যে, মতুয়ারা সবাই নাগরিকের সম্মান পাবেন। মুখ্যমন্ত্রীর সেই কথা প্রসঙ্গে শান্তনুর অভিযোগ " নিজে সংবিধান জানলেও এসব কথা বলে মতুয়া সমাজকে বিভ্রান্ত করছেন মুখ্যমন্ত্রী।"    রাজনৈতিক মহল মনে করছে,  নাগরিকত্বের প্রশ্নে সম্প্রতি শান্তনু বেসুরো কথা বলছেন।  শান্তনুর মান ভাঙাতেই কৈলাস ঠাকুরবাড়িতে এলেন। যদিও নাগরিকত্ব প্রসঙ্গে মমতা ঠাকুর তোপ দেগে বলেন, "কোনও আবেদনপত্র জমা দিয়ে আমরা নাগরিকত্ব নেব না l এর বিরুদ্ধে  আগামী ২৮ শে ডিসেম্বর ঠাকুরবাড়িতে বড়মার ঘড়ের সামনে অবস্থান বিক্ষোভে বসবো আমরা l"

Published by:Pooja Basu
First published: