corona virus btn
corona virus btn
Loading

আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি, ভুল স্বীকার করে কান ধরে ক্ষমা চাইলেন পঞ্চায়েত সদস্য

আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি, ভুল স্বীকার করে কান ধরে ক্ষমা চাইলেন পঞ্চায়েত সদস্য

আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির কথা স্বীকার করে, প্রকাশ্যে গ্রামবাসীদের কাছে কান ধরে ক্ষমা চাইলেন পঞ্চায়েত সদস্য

  • Share this:

#দক্ষিণ ২৪ পরগনা: আমফানের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির কথা স্বীকার করে, প্রকাশ্যে গ্রামবাসীদের কাছে কান ধরে ক্ষমা চাইলেন পঞ্চায়েত সদস্য। দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরের বিডিও, পুলিশের সামনেই কান ধরে ক্ষমা চাইলেন নগেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য।

প্রকাশ্যে কান ধরে গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য ক্ষমা চাইলেন গ্রামবাসীদের কাছে, স্বীকার করে নিলেন আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার যে লিস্ট তৈরি হয়েছে, তা ভুল! মঙ্গলবার সকাল থেকেই নগেন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যকে আটকে রাখা হয় একটি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে। এলাকাবাসীর দাবি মেনে ঘটনাস্থলে যান মথরাপুর দু'নম্বর বিডিও রেজওয়ান আহমেদ। তিনি আশ্বস্ত করেন, '' বিষয়টি আমি নিজে খতিয়ে দেখব।''

ত্রাণ দুর্নীতি নিয়ে বরাবর সরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আমফান ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতি হলে এবার ব্যবস্থা নেবেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী,  ত্রাণ নিয়ে এমনই কড়া অবস্থানের কথা নিজেই জানান মমতা।  নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী  জানান 'ত্রাণ নিয়ে কোনও গরমিল দেখলে থানাকে জানান, অভিযোগ সঠিক হলে আমি নিজে ব্যবস্থা নেব।'

আমফানে বিধস্ত রাজ্যের আট জেলায় বহু ক্ষেত্রে ত্রাণ বণ্টন নিয়ে সরব বিরোধী শিবির। এবার তাই সরাসরি থানায় নালিশ করার নিদান দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এর আগে ত্রাণ নিয়ে বিলি বন্দোবস্তের মূল দায়িত্ব প্রশাসনকেই দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। স্পষ্ট বার্তা দিয়েছিলেন, ত্রাণ বিলি নিয়ে যা করার সরকারই করবে৷ এ নিয়ে দলীয় কোনও হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না৷

প্রথমে করোনার জেরে লকডাউন এবং তার পরে আমফান পরবর্তী সময়ে বিভিন্ন জেলায় রেশন নিয়ে নানা গরমিলের অভিযোগ উঠেছিল। তখনই রাজনৈতিক দলগুলিকে রেশন বিলি থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী, নিজের দলের রিভিউ বৈঠকেও দলীয় নেতাদের এই মর্মে বারে বারে সতর্ক করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

Published by: Rukmini Mazumder
First published: June 23, 2020, 5:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर