ভোটের আগে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার, চাঞ্চল্য সামশেরগঞ্জে

ভোটের আগে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার, চাঞ্চল্য সামশেরগঞ্জে

উদ্ধার হওয়া বিস্ফোরক। নিজস্ব চিত্র

টিঙ্কু মণ্ডলকে জঙ্গিপুর মহাকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক সাতদিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।

  • Share this:

#সামশেরগঞ্জ: ভোটের আগে বিপুল পরিমাণ আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো সামশেরগঞ্জ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এস টি এফ ও সামশেরগঞ্জ থানার পুলিশ শুক্রবার রাতে চাঁদপুর ব্রিজের কাছে নাকা চেকিংয়ের সময় টিঙ্কু মণ্ডল নামে এক ব্যক্তিকে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে উদ্ধার হয় ৭ এমএম পিস্তল, ১৫০ টি কার্তুজ ও ১০ কেজি বিস্ফোরক। টিঙ্কু মণ্ডলকে জঙ্গিপুর মহাকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক সাতদিনের পুলিশ  হেফাজতের নির্দেশ দেন।

জঙ্গিপুরের জেলা পুলিশ সুপার ওয়াই রঘুবংশী বলেন, এসটিএফ ও সামশেরগঞ্জ থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক পাওয়া গেছে। পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে এই ঘটনার সঙ্গে আর কে কে যুক্ত তা বের করার চেষ্টা চলছে।

কিছুদিন আগেই মুর্শিদাবাদের নিমতিতা স্টেশনে মন্ত্রী জাকির হোসেনের ওপর বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় তোলপাড় গোটা জেলা থেকে রাজ্য। ঘটনার তদন্ত চালাচ্ছে সিআইডি ও এনআইএ। শুক্রবার রাতে ঝাড়খন্ড ও বাংলার সীমান্ত নাকা চেকিং করে সামশেরগঞ্জ থানার পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ওত পেতে থাকে এসটিএফ। চাঁদের মোড়ের ব্রীজের কাছে পুলিশকে দেখে টিঙ্কু অটো থেকে নেমে দুই হাতে ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। পুলিশ ধাওয়া করে তাকে হাতেনাতে ধরে।

সাধারণত ভোটের আগে আগ্নেয়াস্ত্র ও কার্তুজের চাহিদা থাকে বাজারে। পুলিশের জেরায় সে স্বীকার করেছে আগ্নেয়াস্ত্র গুলি পনেরো  থেকে কুড়ি হাজার টাকা দামে বিক্রি হয় ও কার্তুজ প্রতিটি ৫০০থেকে ৭০০ টাকা করে বিক্রি হয়।  টিঙ্কু মণ্ডলের বাড়ি মুঙ্গের জেলার বারিয়ারপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েক বছর ধরে এইভাবে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক সে বিক্রি করতো সামশেরগঞ্জ ,সুতি ও রঘুনাথগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায়।

এসটিএফ ও সামশেরগঞ্জ থানার পুলিশ একাধিকবার তাঁকে গ্রেফতার করার চেষ্টা করলেও ধরতে পারিনি। জেলা পুলিশ সুপার বলেন, অনেকদিন ধরেই এর খোঁজে তল্লাশি চলছিল। আগে থেকে আমাদের কাছে খবর ছিল। শুক্রবার অনেক চেষ্টার পর সাফল্যে আসে।

Published by:Arka Deb
First published:

লেটেস্ট খবর