corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বর্ধমান আদালত চত্বরে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হল

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বর্ধমান আদালত চত্বরে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হল

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বর্ধমান আদালত চত্বরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হল

  • Share this:

#বর্ধমান: করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে বর্ধমান আদালত চত্বরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হল। সেই সঙ্গে পরিচয় পত্র সঙ্গে রাখাও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নির্দেশিকা অনুযায়ী, মাস্ক ছাড়া কাউকেই আদালত চত্বরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না। মাস্ক বা পরিচয় পত্র না থাকলে আদালতের গেট থেকেই তাঁদের ফিরিয়ে দিচ্ছেন নিরাপত্তারক্ষীরা। ফলে বিচার প্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ বাড়ছে। তাঁরা বলছেন, '' আদালতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশিকায় এই তথ্য জানানো হলে সুবিধা হত। অনেকেরই বিষয়টি জানা না থাকায় তাঁরা সঙ্গে পরিচয় পত্র আনেননি।''

লকডাউনের জেরে প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর গত সোমবার থেকে বর্ধমান আদালতে 'ফিজিক্যাল' হিয়ারিং শুরু হয়েছে। সপ্তাহে ২ দিন সোম ও শুক্রবার বর্ধমান জেলা  আদালতে ফিজিক্যাল হিয়ারিং হবে বলে নির্দেশিকা জারি করেন। সেইমতো প্রথম দিন ব্যাপক ভিড় হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে না দেখে ফিজিক্যাল হিয়ারিং-এর জন্য এলাকা ভাগ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নির্দেশিকা জারি করে জানান, সোমবার ৭টি থানা ও শুক্রবার বাকি থানাগুলির পিটিশন গ্রহণ করা হবে।

আদালতে একসঙ্গে অনেকের প্রবেশ রুখতেই এই পরিচয় পত্র রাখা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। শুনানি বা গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজন না থাকলেও অনেকেই আদালত চত্বরে ভিড় করেন। অতিরিক্ত ভিড়ের কারণে আদালত চত্বরে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকছে না বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন আইনজীবীরা। তাছাড়া,  ভিড় থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ঝঁকিও রয়েছে। তাই শুধুমাত্র প্রয়োজন রয়েছে, এমন মানুষ-জনদেরই আদালত চত্বরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে।

পরিচয় পত্রের পাশাপাশি আদালত চত্বরে এখন ঢুকতে গেলে মাস্ক  বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অনেকে মাস্কের বদলে রুমাল বেঁধে আদালত চত্বরে ঢুকতে চাইছেন, গেট থেকেই তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আদালতের এই সিদ্ধান্তে খুশি আইনজীবীরা। তাঁরা বলছেন, '' দিন দিন করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। তাই আইনজীবী, আদালতের কর্মী ও বিচারের প্রত্যাশায় আসা প্রত্যেকে সুস্থতার কথা মাথায় রেখেই মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। ''

SARADINDU GHOSH

Published by: Rukmini Mazumder
First published: June 29, 2020, 5:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर