বিয়েবাড়িতে পুলিশ! মাঝ পথেই বন্ধ হল বিয়ের অনুষ্ঠান, কারণ...

দীর্ঘক্ষন ধরে চাইল্ড লাইন ও সিউড়ি থানার পুলিশ মা-বাবাকে বোঝায় ১৮ বছরের নিচে কোন ভাবেই বিয়ে দেওয়া যাবেনা সরকারের আইন অনুযায়ী।

দীর্ঘক্ষন ধরে চাইল্ড লাইন ও সিউড়ি থানার পুলিশ মা-বাবাকে বোঝায় ১৮ বছরের নিচে কোন ভাবেই বিয়ে দেওয়া যাবেনা সরকারের আইন অনুযায়ী।

  • Share this:

#বীরভূম: মেয়ের বিয়ের কিছুক্ষন বাড়িতে হঠাৎ পুলিশ। বিয়ে বাড়িতে চলছিল দুপুরের খাওয়া-দাওয়া, গান বাজনা। কিন্তু পুলিশ যেতেই নষ্ট হয়ে যায় বিয়ের আবহাওয়া। কারণ পুলিশ ও চাইল্ড লাইন ও বীরভূম জেলা আইনি পরিসেবার প্যারালিগ্যাল ভ্লেন্টিয়ারের কাছে মেয়ের অভিভাবকরা জানতে পারে মেয়ের বয়স হয়নি ১৮ বছর। আর সে কারণেই বন্ধ করতে হবে বিয়ের অনুষ্ঠান। একথা শুনে মাথায় হাত মেয়ের বাবা-মায়ের।

দীর্ঘক্ষন ধরে চাইল্ড লাইন ও সিউড়ি থানার পুলিশ মা-বাবাকে বোঝায় ১৮ বছরের নিচে কোন ভাবেই বিয়ে দেওয়া যাবেনা সরকারের আইন অনুযায়ী। ১৮ বছর হলে তবেই বিয়ে দিতে পারবে মেয়ের, এমর্মে পরিবারের লোকজনের কাছে লেখানো হয় মুচলেখা।সিউড়ী থানার অন্তর্গত নগরী পঞ্চায়েতের,বড় গ্রামে ঘটনা।এক নাবালিকার বিয়ে আটকালো প্রশাসন। আজ তারা গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, বিয়ে বাড়িতে হাজির হয়, চাইল্ড লাইন ও সিউড়ি থানার পুলিশ। মেয়ের বয়স ১৭ বছর হওয়ায়, মেয়ে এবং তার বাবা মাকে বোঝানো হলো চাইল্ডে লাইনের পক্ষ থেকে। যে ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দেওয়া আইনত দণ্ডনীয়।

তাই মেয়ের বাবা মায়ের কাছে বিয়ে বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এবিষয়ে মেয়ের বাবা জানান আমি জানতাম না আমার মেয়ের আঠারো বছর বয়স হয়নি। পুলিশ এসে বলে গেছে বিয়ে বন্ধ করতে হবে, তাদের কথা আমি মেনে নিচ্ছি। ১৮ বছর না হওয়া অবধি আমার মেয়ের বিয়ে দেব না। ১৮ বছর হলে তবেই বিয়ে দেব। পাশাপাশি বিয়ের জন্য অনেক টাকা খরচা হয়েছে সে কারণে বিডিওর দ্বারস্থ হব।

Published by:Pooja Basu
First published: