হল না ডাক্তার হওয়া, দুর্গাপুরে পৌঁছল মণীষা ডোমের নিথর দেহ

চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর থেকে দিল্লি পাড়ি দেয় মণীষা ডোম।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 04, 2019 10:26 PM IST
হল না ডাক্তার হওয়া, দুর্গাপুরে পৌঁছল মণীষা ডোমের নিথর দেহ
photo: Death
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Aug 04, 2019 10:26 PM IST

#দুর্গাপুর: ছিনতাইয়ে বাধা দেওয়ায় চলন্ত ট্রেন থেকে মহিলাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিল দুষ্কৃতীরা। মাকে বাঁচাতে ঝাঁপ মেরে প্রাণ গেল মেয়েরও। উত্তরপ্রদেশের মথুরা রোড স্টেশনের কাছে মৃত্যু হল দুর্গাপুরের রাঁচি কলোনীর দুই বাসিন্দার। ট্রেনে ছিল না কোনও নিরাপত্তারক্ষী। ফলে যাত্রী সুরক্ষা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর থেকে দিল্লি পাড়ি দেয় মণীষা ডোম। শুক্রবার গভীর রাতে দিল্লি থেকে কোটা যাওয়ার পথেই বিপত্তি। ছিনতাইবাজের হামলায় প্রাণ গেল মণীষা ও তার মা মীনা ডোমের।

শুক্রবার গভীর রাতে ত্রিবান্দ্রম এক্সপ্রেসের এস-টু কোচে মা ও ভাইয়ের সঙ্গে দিল্লি থেকে কোটা যাচ্ছিলেন মণীষা ডোম। দরজার কাছেই এক নম্বর বার্থে ছিলেন মণীষার মা মীনা ডোম। চার নম্বর বার্থে মণীষা এবং উপরে তিন নম্বর বার্থে শুয়েছিলেন মণীষার ভাই আকাশ। হঠাৎ উত্তরপ্রদেশে মথুরা রোড স্টেশনের আগে মীনা ডোমের হাত থেকে ব‍্যাগ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে কয়েকজন দুষ্কৃতী। বাধা দেওয়ায় মীনা ডোমকে ট্রেন থেকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় ছিনতাইবাজরা। মাকে বাঁচাতে ট্রেন থেকে ঝাঁপ মারে মেয়ে মণীষাও। ঘটনাস্থলেই মৃতু‍্য হয় মা ও মেয়ের।

আপার বার্থে থাকা মণীষার ভাই যখন টের পান, ততক্ষণে ট্রেন অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছে।  রবিবার দুপুরে দুর্গাপুরের রাঁচি কলোনিতে এসে পৌঁছয় মা ও মেয়ের দেহ। রেলের উপর ক্ষোভ উগড়ে দেন কলোনির বাসিন্দারা।

 এই ঘটনায় সাত সদস‍্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে উত্তর মধ‍্য রেল।  চলতি বছরে উত্তরপ্রদেশেই একাধিকবার রাতের ট্রেনে ছিনতাই, ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার গভীর রাতের ঘটনায় ফের একবার প্রশ্নের মুখে যাত্রী নিরাপত্তা।

Loading...

First published: 10:26:29 PM Aug 04, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर