Manas Bhunia: কোনও অজুহাত নয়, সেচ আধিকারিকদের কড়া ধমক মন্ত্রী মানসের!

মানস ভুঁইয়ার ধমক

Manas Bhunia: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মেদিনীপুরের বানভাসি পরিস্থিতি দেখতে বেরিয়ে জায়গায় জায়গায় ঘুরছেন মানস ভুঁইয়া সহ অন্যান্য মন্ত্রীরা।

  • Share this:

#খেজুরি: কাজে গাফিলতির অভিযোগ তুলে সেচ আধিকারিকদের ধমক দিলেন সেচ দফতরেরই প্রাক্তন মন্ত্রী এবং বর্তমান জলসম্পদমন্ত্রী মানস ভুঁইয়া! মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে মেদিনীপুরের বানভাসি পরিস্থিতি দেখতে বেরিয়ে জায়গায় জায়গায় ঘুরছেন মানস ভুঁইয়া সহ অন্যান্য মন্ত্রীরা। শনিবার সন্ধ্যায় অন্যান্যদের সঙ্গে নিয়ে পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের সংযোগস্থল খাজুরি এলাকায় এসেছিলেন মন্ত্রী মানস ভুঁইয়া। পরিদর্শনে এসে খাল সংস্কারের কাজ ঠিক মতো না হওয়া নিয়ে প্রকাশ্যেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। গলা উঁচিয়ে আধিকারিকদের ধমকও দেন তিনি! বলেন- "কোন রকম কোনো অজুহাত শুনবো না। দ্রুততার সঙ্গে কাজ করতে হবে।"

আসলে এলাকার গুরুত্বপূর্ণ খালটি সংস্কারের অভাবে যখন ভোগান্তি বাড়াচ্ছে মানুষের, তখন ঘটনাস্থলে গিয়ে গোটা পরিস্থিতি দেখে বিরক্ত হন মন্ত্রী। দীর্ঘদিন ধরেই খালটির সংস্কারের কাজ হয়নি। টানা বৃষ্টির ফলে বর্তমানে যা রীতিমতো চিন্তায় ফেলেছে স্থানীয় মানুষজনকে। মানুষজনের মুখে অভিযোগ শুনে বিরক্তি চাপতে পারেননি মানস ভুঁইয়া। তাই প্রকাশ্যেই ক্ষোভের সঙ্গেই ধমক দেন আধিকারিকদের।

এদিন পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের সংযোগকারী গুরুত্বপূর্ণ পাকা ব্রিজের বেহাল অবস্থাও দেখেন রাজ্যের দুই মন্ত্রী। পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়া ব্লকের রাধাবল্লভপুর এলাকা এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা ব্লকের গোলগ্রাম খাজুরি এলাকা লাগোয়া গুরুত্বপূর্ণ ব্রিজটির এখন ভগ্ন অবস্থা। দুই মেদিনীপুরের সংযোগস্থল হওয়ায় মানুষজনের কাছে ব্রিজটির যথেষ্টই গুরুত্ব রয়েছে।

অন্যদিকে খালের জলে কচুরি পানা সহ প্লাস্টিক জমে যাওয়ায় জল নিকাশিরও সমস্যা দেখা দিয়েছে। ব্রিজটিকে সংস্কার এবং খাল খনন ও সংস্কার দ্রুত প্রয়োজন দেখা দিয়েছে। যা দেখতে নিজেরাই হাজির হয়েছিলেন এলাকার দুই মন্ত্রী। জানা গেছে, মন্ত্রীর নির্দেশে খুব দ্রুত পরিকল্পনা নিচ্ছে সেচ দপ্তর। গতকাল সন্ধ্যে নাগাদ এই এলাকা পরিদর্শন করেন মন্ত্রী মানস রঞ্জন ভূইয়া এবং হুমায়ুন কবীর।

Published by:Suman Biswas
First published: