জুয়ার টাকার হিসেব চাওয়ায় জের! বর্ধমানে দামোদরের চরে যুবক খুন

নাইলনের দড়ি বা তার দিয়ে পেঁচিয়ে শ্বাস রোধ করে তাকে খুন করা হয়। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছ জনকে থানার নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

নাইলনের দড়ি বা তার দিয়ে পেঁচিয়ে শ্বাস রোধ করে তাকে খুন করা হয়। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছ জনকে থানার নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

  • Share this:

#বর্ধমান: জুয়ার ঠেকে জমা হয় লাখ লাখ টাকা। সেই টাকার ভাগ বাঁটোয়ারা নিয়ে সঙ্গীদের সঙ্গে বচসা চলছিল দুপুর থেকেই। তারই জেরে এক যুবক খুন হল বর্ধমানে। বর্ধমানের সদরঘাটে দামোদরের বালির চড়ে সোমবার সকালে প্রবীর গাইন নামে ওই যুবকের রক্তাক্ত মৃতদেহ পাওয়া যায়। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে।

বর্ধমানের সদরঘাটে কৃষক সেতু লাগোয়া এলাকায় প্রবীর গাইন নামে মৃত যুবকের বাড়ি। এলাকার বাসিন্দারা জানান, দামোদরের বালির চড়ে দুপুর থেকেই প্রবীরের সঙ্গে কয়েক জনের জুয়ায় টাকার ভাগ নিয়ে বিবাদ চলছিল। তারই জেরে এই খুন হয়ে থাকতে পারে। খুনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছ জনকে আটক করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

স্হানীয় এক কিশোর সকালে মৃতদেহটি দেখতে পায়। তার কাছ থেকে খবর পেয়ে মৃতদেহ চিহ্নিত করে পরিবারের লোকজন। খবর পেয়ে বর্ধমান থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক তদন্তে ওই যুবককে খুন করা হয়েছে বলেই মনে হচ্ছে। মৃতদেহের গলার কাছে দাগ রয়েছে। নাইলনের দড়ি বা তার দিয়ে পেঁচিয়ে শ্বাস রোধ করে তাকে খুন করা হয়। এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছ জনকে থানার নিয়ে যাওয়া হয়েছে। মৃতদেহ বর্ধমান মেডিকেলের পুলিশ মর্গে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর প্রকৃত কারন জানা যাবে।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃত প্রবীরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধে জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল। জুয়ার ঠেক চালানোর পাশাপাশি চুরি ডাকাতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে সে গ্রেফতারও হয়। ছ দিন আগেই সে বর্ধমান জেল থেকে ছাড়া পায়। পুরনো পাওনা আদায়ের জন্য সে অন্যদের চাপ দিচ্ছিল। তার জেরেও এই খুন হয়ে থাকতে পারে। বাড়ির সামনেই সে জুয়া খেলছিল। সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে বের হয়। রাতে আর সে বাড়ি ফেরেনি। গভীর রাতে তাকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন করা হয় বলে মনে করছে পুলিশ।

 Saradindu Ghosh

Published by:Elina Datta
First published: